আনুষ্ঠানিকভাবে পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্ক সেবা ফাইভ জি চালু করলো চীন

ফাইভ জি
ফাইভ জি

আজবাংলা ঝকঝকে ছবি স্পষ্ট শব্দের ভিডিও কল, আল্ট্রা হাই ডেফিনিশন ভিডিওর পাশাপাশি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি গেম, মুহূর্তেই যে কোন বড় ফাইল ডাউনলোড বা আপলোড; ফাইভ জি’র কল্যাণে সবই এখন হাতের মুঠোয়। বৃহস্পতিবার বেইজিংয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্ক ফাইভ জি’র যাত্রার মধ্য দিয়ে প্রযুক্তিতে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল চীন। বর্তমানে বেইজিং, শাংহাইসহ ৫০টি শহরে ফাইভ জি সেবা চালু করা হয়েছে। এ বছরের শেষে প্রায় দেড় লাখ ফাইভ জি স্টেশন স্থাপনের কথা জানিয়েছে চীন। যা বিশ্বের বড় ফাইভ জি নেটওয়ার্ক।

  ফাইভ জির বাণিজ্যিক কার্যক্রম সম্প্রসারণের লক্ষ্যে গ্রাহকদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা প্রদান করছে চীনের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন তিনটি মোবাইল অপারেটর। ফাইভ জি সেবার মধ্য দিয়ে চীনের অর্থনীতিতে আমূল পরিবর্তন আসবে বলে আশা বিশ্লেষকদের। ফাইভ-জির বেতার তরঙ্গের তেজস্ক্রিয়তা থেকে ক্যানসার হতে পারে বলে অনেকে মনে করেন। একদম অমূলক আশঙ্কা নয়। ২০১১ সালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সেলফোনের তেজস্ক্রিয়তা মানব শরীরে ক্যানসারের জন্ম দিতে পারে বলে উল্লেখ করেছিল।২০১৬ সালে মার্কিন সরকারের অর্থায়নে পরিচালিত এক গবেষণায় বেতার তরঙ্গের তেজস্ক্রিয়তা ও ইঁদুরের মধ্যে ক্যানসারের সম্পর্ক দেখিয়েছিল। আইফোন এবং স্যামসাং গ্যালাক্সির মতো স্মার্টফোনে এই তেজস্ক্রিয়তা আরও বেশি।তবে স্মার্টফোন ও ক্যানসারের মধ্যে সম্পর্ক বললে একটু বেশি বলা হয়ে যায়। কারণ, দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার্য অনেক যন্ত্রপাতি থেকেই কিছু না কিছু তেজস্ক্রিয়তা ছড়িয়ে থাকে। ২০১৬ সালের গবেষণায় ইঁদুর ব্যবহার করা হয়েছিল। মানুষের শরীরে এতটা ক্ষতি করতে পারবে না। অবশ্য শতভাগ নিশ্চিত করে বলার সময় এখনো আসেনি। তবে বিশ্বের অনেক দেশে ফোর-জিই ঠিকমতো চালু হয়নি। এতে এক অঞ্চলের মানুষ উচ্চ গতির ইন্টারনেট সেবা পেলেও বাকিরা ফোর-জি বা আগের প্রজন্মের নেটওয়ার্কে পড়ে থাকছে। ফলে বিভাজন বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে । এর আগে চলতি বছর ফাইভ জি সেবা উন্মুক্ত করে দক্ষিণ কোরিয়া, ওয়াশিংটন এবং যুক্তরাজ্য। চীনে মূলত আগামী বছর ফাইভ জি’র উদ্বোধন করার কথা থাকলেও পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে নির্ধারিত সময়ের আগেই এই সেবা চালু করল বেইজিং।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!