ট্রেনিং এর নামে মারধরের অভিযোগ উঠল রিজার্ভ ইন্সপেক্টর এর বিরুদ্ধে

complaint against the Reserve Inspector
মারধরের অভিযোগ উঠল রিজার্ভ ইন্সপেক্টর এর বিরুদ্ধে

বিশ্বজিৎ সরকার,আজবাংলা দার্জিলিংঃ শিলিগুড়িতে মাথায় রিভালবার ঠেকিয়ে ট্রেনিং এর নামে অত্যাচার এর অভিযোগ রিজার্ভ ইন্সপেক্টর এর বিরুদ্ধে। ঘটনার সূত্রপাত প্রায় এক মাস আগেই। দক্ষিণ বাংলা সহ বিভিন্ন জায়গায় ছেলেরা আই আর বি (ইন্ডিয়ান রিজার্ভ ব্যাটেলিয়ান) এর ট্রেনিং এ আসে শিলিগুড়ি তে , শিলিগুড়ির অম্বিকানাগর এ দ্বিতীয় ব্যাটেলিয়ন এ। ট্রেনিং শেষ হয়ে গিয়েছে প্রায় এক মাস আগে। ছাড়ছি ছাড়বো করে এক মাস কেটে গেলেও এখনো ছাড়া হয়নি। ফলে ট্রেনিং শেষ হয়ে যাবার পরও ট্রেনিং চলেই যাচ্ছে। আস্তে আস্তে বাড়ছে ট্রেনিং এর নামে অত্যাচার। মানসিক এবং শারীরিক,এমনটাই অভিযোগ ট্রেনিং এ আসা জওয়ান দের। আজ নববর্ষ আনন্দের সাথে সাথে সুরাও হয়ত একটু বেশিই চড়ে গিয়েছিল কর্মরত রিজার্ভ ইন্সপেক্টর সৌরভ চক্রবর্তী বাবুর। সন্ধ্যের পর পর শুরু হয় অত্যাচার। সেই আবার ট্রেনিং এর নাম করে সবাই কে এক জায়গায় করে চলে অত্যাচার। জওয়ান দের অভিযোগ রিজার্ভ ইন্সপেক্টর সৌরভ চক্রবর্তী মাথায় রিভলভার ঠেকিয়ে রাতের বেলায় ট্রেনিং করতে বাধ্য করেছে ,না করলে প্রান নাশের হুমকি,তাদের অভিযোগ দু তিন জন কে মেরে কারো নাক,কারো মুখ ফাটিয়ে দিয়েছে ,তারা উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি .অপর দিকে ঘটনা স্থলে যায় এন যে পি থানার পুলিশ। তাদের কেউ ঢুকতে দাওয়া হয়নি। বারবার বলা হয়েছে সব ঠিক আছে , অপর দিকে জওয়ান রা পুলিশ কে সব কিছু জানবার জন্য মরিয়া। ব্যারাক এর ভেতরেই অবস্থান বিক্ষোভ এ বসেন তারা। আজ পরিস্তিতি হাতের বাইরে চলে গিয়েছে , ফলে ঘটনাস্থলে আসেন উচ্চ পদস্থ আধিকারিকেরা , তারা অশ্বস্থ করেন সম্পূর্ণ ঘটনার তদন্ত করা হবে। জওয়ান দের বক্তব্য এ কেমন ট্রেনিং ? যেখানে কোনো রকম বিপদজনক মুহূর্তে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে এই জওয়ান রাই ,সেখানে তাদের সাথেই ট্রেনিং এ তাদের সুপিরিয়র রাই রাগিং করছে । আবার এই সুপিরিয়র বা উচ্চ পদস্থ আধিকারিক রাই বিভিন্ন সেমিনার বা কোনো মিট এ আন্টিকারোপশন এর বড় বড় কথা বলেন। রবিবার রাতে এই আর বির ২ ব্যাটেলিয়নের প্রশিক্ষিত ছাত্ররা আর আই সৌরভ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে অত্যাচারের অভিযোগ তুলে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখায়। ব্যাপক উত্তেজনা ছিল শিলিগুড়িতে অম্বিকা নগরের এই ২ ব্যারাকে। গতকাল রাতে ঘটে যাওয়া ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সকাল থেকেই আনাগোনা শুরু হয় আই আর বির ডিআইজি জয়ন্ত পাল,সহ উচ্চ পদস্থ আধিকারিকদের। এদিন আই আর বির কমান্ড্যান্ট সংমিত লেপচা ও জয়ন্ত্ পাল প্রশিক্ষিত দের সাথে কথা বলেন ও সব অভাব অভিযোগ শোনেন। বৈঠক সূত্রে জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে অন্তর্বিভাগিয় তদন্তের পদক্ষেপ করা হয়েছে। এদিন সকাল সাড়ে আটটা থেকে টানা প্রায় ২ থেকে ২:৩০ ঘন্টার বৈঠক হয়। যদিও এবিষয়ে মুখ খুলতে চান নি আধিকারিকরা।