প্রধানমন্ত্রীর লকডাউন বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের সমালোচনায় কংগ্রেস

আজ বাংলা- আগামী ৩ মে পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধির ঘোষণা করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। কনগ্রেসের প্রবীণ নেতা অভিষেক মনু সিংভি তাঁর এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সমালোচনা করেছেন। "এ যেন অনেকটা ডেনমার্কের রাজপুত্র ছাড়া হ্যামলেট" এই বলে মোদির সিদ্ধান্ত কে কটাক্ষ করে তিনি অভিযোগ করেছেন। মঙ্গলবার করোনা ভাইরাস ও লকডাউন কে কেন্দ্র করে কেন্দ্রের তরফ থেকে গৃহীত পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তার ভাষণের পরেই কংগ্রেসের বেশ কয়েকজন নেতা টুইট করে তাঁর সমালোচনা করেন। প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেছেন, এই লকডাউনের ফলে সবচেয়ে সমস্যায় পড়েছেন দেশের দরিদ্র শ্রেণির মানুষজন। তাঁদের কথা মাথায় রেখেই ২০ এপ্রিলের পর দেশের কয়েকটি অংশে এই লকডাউনের বিধিনিষেধ লাঘব করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হবে। কিন্তু এই বক্তব্যের পরেই তাঁর সমালোচনায় উঠেপড়ে লাগেন কংগ্রেস একাধিক নেতা। মনু সিংভির মতে এই পরিস্থিতিতে দরিদ্রদের জন্য সরকারের আরও বেশি ত্রাণ ঘোষণা করা উচিত ছিল। মোদির ভাষণের পর দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা প্রবীণ কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরম "আমার প্রিয় দেশ এবার কাঁদো" এই বলে টুইট করে তাকে কটাক্ষ করেছেন। যদিও লকডাউনের মেয়াদবৃদ্ধি এইসময় বাধ্যতামূলক তা স্বীকার করেছেন তিনি। দেশে ইতিমধ্যেই সংক্রমণ ১০,০০০ এর গণ্ডি ছাড়িয়েছে। তা পরিস্থিতির সামাল দিতেই লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধির ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। "সমস্ত পরামর্শ শোনার পর আমরা এই লকডাউনের মেয়াদ আগামী ৩ মে পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি", তাঁর ২৫ মিনিটের ভাষণে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি এও বলেন, যে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের প্রতিটি রাজ্যের প্রতিটি জেলায় লকডাউনের বিধি ঠিকমতো অনুসরণ করা হচ্ছে কিনা তা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে। তারপরেই আমরা বিধিনিষেধ শিথিল করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা ভেবে দেখবো।