হরিশ্চন্দ্রপুরে ট্রাক্টর চাপা পরে মৃত্যু এক চালকের

মহ:নাজিম আক্তার,আজবাংলা হরিশ্চন্দ্রপুর, মালদা ট্রাক্টরের নিচে চাপা পড়ে মৃত্যু হল চালকের। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লকের তুলসীহাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত সালালপুর গ্রামে। ওই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়।ওই ঘটনার খবর দেওয়া হয় পুলিশকে।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে , মৃত ওই ট্রাক্টর চালকের নাম জাহাঙ্গীর আলম (22)। হরিশ্চন্দ্রপুর- ১ নং ব্লকের তুলসীহাটা জিপির সালালপুর গ্রামের বাসিন্দা।এদিন সকাল প্রায় ন'টার সময় ওই চালক রাস্তার পাথর খালি করে পিছন দিক হয়ে আসছিল।তারপর ওই চালক ট্রাক্টরটি পিছিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গিয়ে নয়ানজলিতে পড়ে যায়। সেই সময় চালক ট্রাক্টরের নিচে চাপা পরে যাওয়াতেই ইঞ্জিন টি তার বুকে চাপা পড়ে যায় ।জলের তলায় প্রায় পনেরো মিনিট থাকার পর স্থানীয় লোকেরা উদ্ধার করে।পাশেই থাকা হরিশ্চন্দ্রপুর দমকল অফিসের সরকারি কর্মীরা দমকল গাড়িতে করে চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তারবাবুরা মৃত্যু বলে ঘোষণা করেন ।ডাক্তার সেলিম জানান, 'ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়েছে ওই চালকের।'ঘটনাটি ঘটায় মৃতের পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে । জাহাঙ্গীর আলমের বাবা সেখ এনামুল জানান, '81 নং জাতীয় সড়কের বাইপাস সালালপুর গ্রাম থেকে তুলসীহাটা গামি রাজ্য সড়কটি প্রায় এক বছর ধরে সংস্কার ও ঢালাই এর কাজ চলছে ।জাহাঙ্গীর আলম সেই রাস্তায় ট্রাক্টরের ড্রাইভার হিসেবে কাজ করছিল ।এদিন রাস্তার পাথর খালি করে পিছনে হয়ে খালি ট্রলিটি নিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নয়ানজলিতে পড়ে মৃত্যু হয় ।তিনি আরো জানান, 'রাস্তার কনট্রাকটরকে ফোন করলে ফোন তুলে না। এখনো পর্যন্ত একবারও তিনি খোঁজখবর নেননি ।'তার অভাবের সংসার। তিন ছেলে আসাদ, মঞ্জুর ও জাহাঙ্গীর আলম সহ মোট পাঁচ জনের পরিবার।কোনো রকম চাষবাস করে সংসার চালান।তার ছোট ছেলে জাহাঙ্গীর আলম ট্রাক্টর নিয়ে কাজ করতে গিয়ে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে ।গাড়িটি হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় এবং দেহটিকে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয় ।