বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা ঘিরে ধুন্ধুমার কলকাতা, আটক মুকুল-কৈলাশ

আজবাংলা   এর আগেও একাধিকবার কলকাতায় বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা ঘিরে অশান্ত হয়েছে কলকাতার রাজপথ।এবার বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা ঘিরে ধুন্ধুমার বাধল কলকাতায়। মিছিলের সূচনা করেছিলেন এরাজ্যের বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। সঙ্গে ছিলেন মুকুল রায়ও। আর মিছিল শুরু হতেই পুলিশের বাধার মুখে পড়ে কার্যত রণক্ষেত্র হয়ে উঠল টালিগঞ্জ এলাকা। আটক করা হল কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, মুকুল রায়, জয়প্রকাশ মজুমদার, সায়ন্তন বসু, অগ্নিমিত্রা পাল-সহ একাধিক নেতা-কর্মীকে। সিএএ-র সমর্থনে কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের নেতৃত্বে এদিন মিছিল শুরুর আগেই পুলিশ বাধা দেয় বলে অভিযোগ। মোট ৪৫০ জন নেতা-কর্মীকে পুলিশ আটক করেছে বলে দাবি বিজেপির। কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র অভিযোগ, তাঁরা সংবিধান মেনে শান্তিপূর্ণভাবে মিছিল করছিলেন। CAA-র হয়ে জনগণকে প্রচারের জন্যই তাঁরা মিছিল করছিলেন। টালিগঞ্জ ফাঁড়ি থেকে হাজরা মোড় পর্যন্ত তাঁদের মিছিল করার কথা ছিল। পুলিশ তাঁদের মিছিলে বাধা দেয়। অশান্তির জেরে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে টালিগঞ্জ ফাঁড়ির মতো গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। আটকে পড়ে যান চলাচল। পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হতে শুরু করলে, পুলিশ কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে গ্রেপ্তার করে। মুকুল রায়কেও গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া অভিনন্দন যাত্রায় শামিল বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার-সহ বেশ কয়েকজনকেও পুলিশ ভ্যানে তুলে্ নিয়ে যায়। গ্রেপ্তারির পর ক্ষোভ উগরে দেন কৈলাস। তিনি অভিযোগের সুরে বলেন, ”CAA-এর বিরুদ্ধে মিছিল করতে দেওয়া হয়, সমর্থনে বাধা দেওয়া হয়। বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জঙ্গলের রাজত্ব চলছে।” পুলিশের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহারের অভিযোগও তুলেছেন কৈলাস বিজয়বর্গী। এ প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু বলেন,‘‘বিপজ্জনক পরিস্থিতি, রাজ্যজুড়ে কোনও গণতন্ত্র নেই। জানি না কী পরিস্থিতি চলছে’’। https://twitter.com/ANI/status/1225715907588046848?ref_src=twsrc%5Etfw%7Ctwcamp%5Etweetembed%7Ctwterm%5E1225715907588046848&ref_url=https%3A%2F%2Fwww.sangbadpratidin.in%2Fkolkata%2Fclashes-between-bjp-supporters-and-police-at-abhinandan-yatra%2F