জেলার বিভিন্ন ব্লকে আজ থেকে শুরু হলো আদিবাসী মেলা।

আদিবাসী মেলা
আদিবাসী মেলা

আজবাংলা  পশ্চিম মেদিনীপুর : কেউ নাচলেন মুণ্ডারী তো কেউ নাচলেন কোল হো, কখনও হল পাতা নাচ তো কখনও শবরদের চাং the নৃত্যে মন দুলে উঠল দর্শকদের। ঝুমুর– মুণ্ডা– টুসু– ভাদু গান তো আছেই। শুধু তাই নয় নাটকের মাধ্যমে কন্যাশ্রী থেকে শুরু করে ম্যাজিক শো, সব আয়োজনই রাখা হয়েছে। সেইসঙ্গে দুই সঞ্চালক অলোক রঞ্জন পাত্রর বাংলায় ও রীতা সরেনের সাঁওতালীতে নজরকাড়া বাচনভঙ্গী যোগ করেছে অন্য এক মাত্রা। এভাবেই আদিবাসী মেলা ও উৎসবের সূচনা হল খড়্গপুর দুই নম্বর ব্লকে। জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন জেলা পরিষদের সহ সভাধিপতি অজিত মাইতি, বিডিও ডঃ আলি মহম্মদ ওয়ালিউল্লা, যুগ্ম বিডিও চিন্ময় দাস, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সেক আনসু রহমান, প্রাক্তন সভাপতি নারায়ন মাজী,মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র প্রমুখ।
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ঘোষণা অনুয়ায়ী সারা রাজ্যের ১০০ টি ব্লকে আদিবাসী মেলা ও উৎসব হচ্ছে। কুড়ি শতাংশেরও বেশী আদিবাসী জনসংখ্যা নিয়ে সেই তালিকায় স্থান করে নিয়েছে খড়্গপুর দুই নম্বর ব্লকও। আজ মাদপুরে বিডি অফিস চত্বরেই বসেছিল মেলার আয়োজন। আদিবাসী সংস্কৃতি তুলে ধরতেই এই আয়োজন। আদিবাসী সমাজের মানুষের নিজস্ব নাচ, গান, শিল্প, সংস্কৃতির প্রচার প্রসারের পাশাপাশি বিভিন্ন সরকারী প্রকল্পের পরিষেবা প্রদানেরও আয়োজন করা হয়েছে। বিডিও ওয়ালিউল্লা সাহেব বলেছেন, আদিবাসী এই মেলায় ব্লকের সবকটি গ্রামপঞ্চায়েতই অংশগ্রহন করেছে। দারুন সাড়া পড়েছে অন্যান্য সম্প্রদায়ের মধ্যেও। উপভোগ করছেন সকলে। মেলায় বিভিন্ন স্টল দেওয়া হয়েছে। এদিন হেলথ চেক আপ ক্যাম্প ও ব্লাড সুগার নির্ণয় শিবিরের আয়োজনও ছিল মেলার স্টলে।