ব্যবসায়ীর কাছে তোলা চেয়ে হুমকির অভিযোগে গ্রেফতার হাতকাটা দিলীপ।

আজবাংলা মাস দুয়েক আগে লেকটাউন এলাকায় একটি নির্মীয়মান ফ্ল্যাটের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে এক লক্ষ টাকা নিয়েছিল দিলীপ। ওই ব্যবসায়ীর থেকে আবারও টাকা চেয়ে হুমকি দিতে থাকে হাতকাটা দিলীপ ও তার দলবল।আর সেই প্রোমোটারের অভিযোগের ভিত্তিতেই হাতকাটা দিলীপকে গ্রেফতার করে লেকটাউন থানার পুলিস। অভিযোগ,  গত ১৯ অগাস্ট রাতে লেক টাউনের বাসিন্দা ওই প্রোমোটারের বাড়িতে সদলবলে চড়াও হয় হাতকাটা দিলীপ। ওই ব্যবসায়ীকে গালিগালাজ এবং প্রাণনাশের হুমকি দেয় বলেও অভিযোগ।ওই প্রোমোটারের আরও অভিযোগ, মাস দুয়েক আগে লেকটাউন এলাকায় একটি নির্মীয়মান ফ্ল্যাটের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে এক লক্ষ টাকা নিয়েছিল দিলীপ। ওই ব্যবসায়ীর থেকে আবারও টাকা চেয়ে হুমকি দিতে থাকে হাতকাটা দিলীপ ও তার দলবল।কিন্তু ওই ব্যবসায়ী টাকা দিতে অস্বীকার করায় তার বাড়িতে দলবল নিয়ে চড়াও হয় সে।কে এই কুখ্যাত দুষ্কৃতী দিলীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ওরফে হাতকাটা দিলীপ।লেকটাউনের বসাকবাগানের বাসিন্দা দিলীপ আর তার ভাই বাপাইকে একসময় শান্তশিষ্ট বলেই জানতেন এলাকাবাসী৷ পড়াশোনাতেও খারাপ ছিল না দু’ই ভাই৷ বর্ষীয়ান এক পুলিশ অফিসার বলেন, ওদের কিশোর বয়সে পরিবার ছেড়ে অন্য এক মহিলাকে নিয়ে চলে যান দিলীপের বাবা৷ তারপরেই বদলে যায় ব্যানার্জ্জী বাড়ির বড় ছেলের জীবন৷ গ্রিন পার্কের বন্ধু নোনা রায়কে সঙ্গে নিয়ে চুরি-ছিনতাইয়ে হাত পাকায় দিলীপ৷ নয়ের দশকে লেকটাউনের পিনাকী মিত্রর হাত ধরে অন্ধকার জগতে আসা দিলীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ওরফে হাতকাটা দিলীপের। তারপর এক মন্ত্রীর স্নেহের হাত মাথায় থাকায় বেপরোয়া উত্থান৷ জোড়াখুন, তোলাবাজি- শেষে ফুটবলারের বাড়ি থেকে তার গ্রেপ্তারি বিপাকে ফেলেছিল মন্ত্রীমশাইকে৷ দলের একাংশ খড়গহস্ত হন সেই দাপুটে মন্ত্রীর উপর৷ এমন মস্তানকে মন্ত্রীর মদত দেওয়ার অভিযোগ নিয়ে মুখ খুলতে হয়েছিল জ্যোতি বসুকেও৷ কিছুদিন পরে হঠাত্‍ই হাতকাটা দিলীপ সিপিএমের এক সাংসদের কাছাকাছি চলে যায়৷ শোনা যায়, মন্ত্রীমশাই চাপে পড়ে তার সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করলেও, ‘কাজের ছেলেকে’ পরে কাছে টেনেছিলেন দলের সেই সাংসদই৷ এই জমানাতেও দিলীপকে নিয়ে দড়ি টানাটানি চলছেই৷ শাসকদলের এক বিধায়কের সঙ্গে সুসর্ম্পক রেখে ইদানীং প্রোমোটিংয়ে মন দিয়েছিল ১৯৯৮ সালে বোমা বাঁধতে গিয়ে বাঁ হাত খোয়ানো দিলীপ৷