ফেসবুকের ভাইরাল গান বদলে দিল নদীয়ার ভবঘুরে রানু দেবীর জীবন

আগে ও পরে রানুদেবী
আগে ও পরে রানুদেবী

আজবাংলা রানাঘাট মুম্বইয়ের বাবুল মণ্ডলের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল রানু মণ্ডলের। স্বামী মারা যাওয়ার পর রানাঘাটে ফিরে আসেন তিনি। রেলস্টেশনে ঘুরে ঘুরে গান গাইতেন। যেসব গান গাইতে গিয়ে বড় বড় গায়ক-গায়িকারা হোঁচট খান, লতার সেসব গান অবলীলায় গাইতেন রানুদেবী।সেই মুম্বইয়ের একটি রিয়েলিটি শোতে গান গাওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছেন রানুদেবী । তাঁর যাতায়াতের খরচও অনুষ্ঠানের কর্মকর্তারা দেবেন কিন্তু কোনও পরিচয়পত্র না থাকায় তাঁকে নিয়ে যাওয়ার সমস্যা হচ্ছে।তাঁর পুরো নাম রানু মারিয়া মণ্ডল। নতুন যে সব যোগাযোগ এসেছে, তাতে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে সরকারি পরিচয়পত্র। তাঁর কোনও পরিচয়পত্র না থাকায় বিমান বা দূরপাল্লার ট্রেনে টিকিট কাটা যাবে না। তবে বিডিও, এসডিপিও স্বয়ং উপস্থিত হওয়ায় সেই সমস্যা কেটে যাবে বলে আশাবাদী প্রতিবেশীরা।অভাব অনটনে যে গান এতদিন চাপা পড়েছিল, সেই গানেই এখন মাতোয়ারা দর্শককুল। সোশাল মিডিয়ায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে ভিউ। সত্যিই তাঁর গানের গলা যে চমকে দেওয়ার মতোই। এতদিন তা চাপা পড়েছিল দারিদ্র্যের যুপকাষ্ঠে। সোশাল মিডিয়ায় একটা পোস্টই আমূল বদলে দিয়েছে তাঁর জীবন। একেবারে সাদামাটা। মুখ দেখলে বোঝার উপায় নেই কী প্রতিভা লুকিয়ে রয়েছে তাঁর ভিতরে ।রানাঘাটের কোকিলকণ্ঠী ভবঘুরে রানু মণ্ডল এখন রীতিমতো বিখ্যাত। কলকাতা, মুম্বই, কেরল এমনকি বাংলাদেশ থেকেও ডাক আসছে তাঁর। অনেক নামজাদা মানুষদের কাছ থেকেও প্রশংসা পেয়েছেন। ইতিমধ্যেই নানা জায়গা থেকে গানের রেকর্ডিংয়ের প্রস্তাব পাচ্ছেন রানুদেবী। বদলে গেল রানু মণ্ডলের জীবন। পার্লারে গিয়ে একেবারে বদলে গেছেন ভবঘুরে রানুদেবী। যেন ফিরে পেয়েছেন নতুন জীবন।