পোষ্য অন্তঃসত্ত্বা! সারমেয়র সাধভক্ষণের আয়োজন করে তাক লাগালেন মালিক

পোষ্য অন্তঃসত্ত্বা! সারমেয়র সাধভক্ষণের আয়োজন করে তাক লাগালেন মালিক

আজ বাংলা: পোষ্য অন্তঃসত্ত্বা! তাই অনুষ্ঠানের কোনও খামতি রাখলেন না মেইল। বাড়িতে সন্তানসম্ভবা মহিলা থাকলে কতই না যত্ন নেন পরিজনরা। আর তাঁর ভাল লাগার কথা মাথায় রেখেই নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে সাধভক্ষণের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তবে এ তো না হয় গেল অন্তঃসত্ত্বা মহিলার কথা। 

তবে কোনও সারমেয়র (Dog) সাধভক্ষণের আয়োজন করতে দেখেছেন কখনও? শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। পোষ্য সারমেয়টিকে গৃহকর্তা ও কর্ত্রী আদর করে নাম দিয়েছে লুসি। ছোট থেকে থাকতে থাকতে লুসিও তাঁদের পরিবারেরই একজন হয়ে গিয়েছে। সেই ছোট্ট লুসিই হতে চলেছে মা। তাই তারই সাধভক্ষণের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের দিন সকাল সকাল সবুজ রঙের ফ্রক পরিয়ে দেওয়া হয় তাঁকে। 


সাজগোজ হয়ে যাওয়ার পর গৃহকর্তা তাঁর মাথায় কারুকার্য করা একটি ফিতে বেঁধে দেওয়া হয়। তারপর লুসিকে নিয়ে যাওয়া হয় অনুষ্ঠানস্থলে। সেখানে লুসির বসার জন্য একটি বিশেষ জায়গার বন্দোবস্ত করা হয়। মহিলারা প্রদীপ জ্বালিয়ে তাকে কার্যত বরণ করে নেয় দেখা যায়। তারপর তাকে খেতে দেওয়া হয়। 

অন্তঃসত্ত্বা বলে কথা তাই লুসির খাওয়াদাওয়ার দেরি করা যাবে না। সে কারণে আগে খাওয়াদাওয়ার পর করা হয় ফটোসেশন। পরিবারের সদস্যরা প্রত্যেকেই লুসির পাশে দাঁড়িয়ে ছবিও তোলেন।


আর যা কিনা সোশ্যাল মিডিয়ায় গোটা অনুষ্ঠানটি বিদ্যুতের গতিতে ভাইরাল হয়ে যায়। যে দেখেন সেই তাজ্জব হয়ে যান। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে যখন বারবার সারমেয়কে মারধর, হত্যা এমনকী ধর্ষণের মতো ঘটনা জায়গা করে নেয়, সেই প্রেক্ষাপটে সারমেয়র সাধভক্ষণের আয়োজন করে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন উদ্যোক্তারা। এদিকে লুসি এবং লুসির গর্ভস্থ সন্তানের সুস্বাস্থ্য কামনা করেছেন নেটিজেনরা।