তিন বছরের জন্যই আবার বাবা ছেলের গোষ্ঠীর হাতেই মোহনবাগান

Father of the son's son Mohanbagan
বাবা ছেলের গোষ্ঠীর হাতেই মোহনবাগান

আজবাংলা  বিপুল জয়ের পর বাগানের নতুন সহ-সচিব সৃঞ্জয় বোস বলে দিয়েছেন, ‘‌এত বড় ব্যবধানে জিতে ভাল লাগছে। তবে সদস্যরা বাবাকে ভোট দিতে পারেননি। একটা আফশোস তাঁদের ছিল। তাঁরাই আমাকে ভোট দিয়েছেন। বাবা ভোটে লড়লে আরও বড় ব্যবধানে জিততেন।  গভীর রাতে ভোটের ফল ঘোষণার পর দেখা যায় চিত্রনাট্যে কোনও বদল হয়নি। সব পদেই টুটু বোস শিবিরের প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জিতেছেন। সবচেয়ে বেশি ভোটে জিতেছেন সহসচিব পদে সৃঞ্জয় বোস। বাগানে মোট বৈধ ভোটার ৮৫৫৪। রবিবার ভোট দিয়েছেন ৪৯৫২ জন। সৃঞ্জয় বোস পেয়েছেন ৪০৩৭ ভোট। তাঁর বিরুদ্ধে দাঁড়ানো অঞ্জন গোষ্ঠীর অশোক গুছাইত পেলেন মাত্র ৭৫২ ভোট। কোষাধ্যক্ষ পদে দাঁড়ানো টুটু শিবিরের সত্যজিত্‍ চ্যাটার্জি পান ৩৭৫৩ ভোট। সেখানে অঞ্জন গোষ্ঠীর মদনমোহন দত্ত পেয়েছেন ১০২৩ ভোট। অর্থসচিব পদে টুটু শিবিরের দেবাশিস দত্ত জিতলেন ৩৬৭৫ ভোট পেয়ে। ফুটবল সচিব পদে টুটু শিবিরের স্বপন ব্যানার্জি পেয়েছেন ২৯৭৮ ভোট। তাঁর বিরুদ্ধে দাঁড়ানো অঞ্জন শিবিরের দেবাশিস রায় পান ১৪৮৫ ভোট। তৃতীয় পক্ষের হয়ে ফুটবল সচিব পদে দাঁড়ানো দেবকুমার রায় পেয়েছেন মাত্র ৮৫ ভোট। এছাড়া টুটু শিবিরের হয়ে ক্রিকেট সচিব পদে সম্রাট ভৌমিক, হকি সচিব পদে মহেশকুমার টেকরিওয়াল, টেনিস সচিব পদে সঞ্জয় ঘোষ, মাঠ সচিব পদে উত্তম কুমার সাহা, অ্যাথলেটিক্স সচিব পদে দেবাশিস মিত্র এবং যুব ফুটবল সচিব পদে বিদেশ বোস সহজেই জিতেছেন। যুব ফুটবল সচিব পদে বিদেশ বোসের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিলেন অঞ্জন কন্যা সোহিনী মিত্র চৌবে। তিনি পান মাত্র ১০০৯ ভোট। সেখানে বিদেশ বোস পেয়েছেন ৩৫৫৪ ভোট। কার্যকরী কমিটিতেও টুটু শিবিরের হয়ে দাঁড়ানো সবাই জিতেছেন। তাঁদের মধ্যে আছেন সিদ্ধার্থ রায়, মঞ্জু ঘোষ, পার্থজিত্‍ দাস, সন্দীপন ব্যানার্জি, সুশান্ত কুমার সাহা, দেবপ্রসাদ মুখার্জি, পিন্টু বিশ্বাস, তন্ময় চ্যাটার্জি, রবিশঙ্কর মোদক, তমাল পাল ও সোমেশ্বর বাগুই।