অবশেষে হাই কোর্টের নির্দেশে নদীয়ার করিমপুর ২ পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করল বিজেপি

আজবাংলা করিমপুর ২২ আসন বিশিষ্ট করিমপুর ২ পঞ্চায়েতে বিজেপির ১২, তৃণমূলের ৮ ও নির্দল ২টি করে আসন পায়। পরে দু'জন নির্দলকে নিয়ে তৃণমূলের আসন হয় ১০। বোর্ড গঠন করার দাবিতে বিজেপি সোচ্চার হয়। এবং এই মর্মে জেলা প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়। অভিযোগ, কিছুতে বোর্ড গঠনের নির্দেশ দিচ্ছিল না প্রশাসন। ফলে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয় বিজেপি। কয়েক মাস লড়াইয়ের পর বোর্ড গঠনের নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট। এবং সেমতোই মঙ্গলবার নির্বাচন হয়।মঙ্গলবার দুপুরে হওয়া ভোটাভুটিতে ১১-১০ ভোটে শাসকদলের প্রধান পদপ্রার্থীকে পরাজিত করল গেরুয়া শিবিরের প্রার্থী। তৃণমূলের অনুভা পালকে পরাজিত করে পঞ্চায়েত প্রধান হলেন বিজেপির মনীষা মালাকার। একই ভাবে তৃণমূলের তাপসী সিংহকে হারিয়ে উপপ্রধান হলেন বিজেপির সোমা ভট্টাচার্য। ভোটের ফল ১২-১০।এ বিষয়ে করিমপুর ১-এর বিডিও অনুপম চক্রবর্তী জানান, ২২ জুলাই থেকে বিয়াল্লিশ দিনের গঠন করার মধ্যে বোর্ড গঠনের নির্দেশ দিয়েছিল হাই কোর্ট। তার আগেই বোর্ড গঠন করা হল। ''এতদিন বোর্ড গঠন হয়নি কেন?'' প্রশ্নের উত্তরে অনুপমবাবু বলেন, ''আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির জন্য বোর্ড গঠন করা যায়নি। এর সঙ্গে অন্য কিছুর যোগ নেই।'' এই ফলাফলকে মাথা পেতে নিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব। শাসকদলের করিমপুর ১ ব্লকের সভাপতি তরুণ সাহা বলেন, ''বিজেপি আদালতের দ্বারস্থ হয়ে মানুষকে বঞ্চিত করেছে। তবে আমরা এই রায় মাথা পেতে নিচ্ছি।'' রায় প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা অর্জুন বিশ্বাস বলেন, ''আমরা জেলাশাসক থেকে ব্লকে বারবার জানিয়েছি। কিন্তু কিছু হয়নি। আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলাম। আমরা আদালতের নির্দেশে বোর্ড গঠন করতে পারলাম।