শাসক দলের দুর্নীতি ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে কলম ধরায় প্রাক্তন সাংবাদিকে পুলিশি হেনস্তার অভিযোগ

সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়
সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়

আজবাংলা সাংবাদিকতা কিংবা লেখালিখি করা সন্ময়ের ভালোবাসার বিষয়। পেশা নয়, নেশাঐ। ‘দেশ’ থেকে ‘আনন্দবাজার’ পত্রিকার বিশেষ ক্রোড় পত্রিকাতে একসময় নিয়মিত লিখতেন । আজও স্বাধীনভাবে পত্র-পত্রিকাগুলোতে লিখে চলেছেন। অভিযোগ বর্তমান রাজ্য সরকারের প্রশাসনে ঘটে চলা পাহাড় প্রমাণ দুর্নীতি এবং অনাচারের বিরুদ্ধে সাধ্য মত লিখছেন মানুষকে সচেতন করতে। এরই পরিণতিতে সন্ময়ের পরিবারের উপর নেমে এল এক রকম পুলিশ প্রশাসনের অত্যাচার। ​পানিহাটী পুরসভার পুরপ্রধান সেপ্টেম্বর ২০১৮ তে মেয়াদ উর্ত্তীর্ণ হওয়ার পরও দফতরে বসে কাজ করে যাচ্ছেন, পুরসভার গাড়ি ব্যবহার করে যাচ্ছেন – এটি সংবাদ মাধ্যমে বিবৃতিসহ প্রকাশ করেন প্রাক্তন সাংবাদিক ও প্রদেশ কংগ্রেসের অন্যতম মুখপাত্র সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়। বেশ কিছু দিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়া এবং ইউটিউবে রাজ্যের বর্তমান শাসক এবং তাঁর দলের সঙ্গী সাথীদের ধারাবাহিক দুর্নীতি, অত্যাচার এবং অনাচারের বিরুদ্ধে কলম ধরছেন। এ কারণ তাঁর বিরুদ্ধে অনেকদিন ধরেই ব্যক্তিগত আক্রমণ নেমে আসছে। টেলিফোনে ক্রমাগত হুমকি দেওয়া হচ্ছে গত দুমাস ধরে। এখন শুরু হয়েছে একের পর এক এফআইআর এবং মামলা। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ হয় নন্দীগ্রাম থানা। ​অভিযোগ, গত ২৫ সেপ্টেম্বর নন্দীগ্রাম থানায় লোকজনকে দিয়ে ৫টি ধারা যুক্ত করে পুলিশ কেস করানো হয়। যার ভিত্তিতে মহিষাদল থানার আইসি সমন পাঠান। সেই সমনে নির্দেশ ছিল তিনদিনের মধ্যে মহিষাদল থানায় হাজিরা দেওয়ার। অভিযোগ, গত ২৯ সেপ্টেম্বর রবিবার রাত সাড়ে এগারোটায় সন্ময়বাবুর আগরপাড়ার বাসভবনে প্রায় আঠারো-উনিশ জন পুলিশ অতর্কিতে অভিযান চালায়। ওর স্ত্রী, দাদা এবং বোনকে ওই গভীর রাতে বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে উদ্ধতভাবে অপমানিত এবং ক্রমাগত ভাবে হুমকি দিতে থাকেন জনৈক অফিসার। ঘটনার সময় সন্ময়কে হাতের নাগালে না পেয়ে সংশ্লিষ্ট অফিসারটি বারংবার হুমকি দিয়ে যান তাঁর পরিবারকে। রাত দেড়টার সময় তাঁরা ঘটনাস্থল ছাড়েন। ওই ঘটনার সময়ে খড়দহ থানার আইসি কে বিষয়টি নিয়ে টেলিফোন করলে তিনি দায়সারা একটি উত্তর দেন -আমি এই বিষয় সম্পর্কে কিচ্ছু জানি না, কি কারণে পুলিশ অভিযানে গিয়েছে। আমার কাছে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে, আমি সেটাই শুধু দিয়েছি। সেই রাতে তাঁর বাড়ি ঘিরে ফেলা পুলিশ বাহিনীর দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার কিছুতেই বলেননি কোন অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁরা তাঁকে খুঁজতে এসেছেন।শুক্রবার প্রদেশ কংগ্রেসের একদল প্রতিনিধি দলের অন্যতম মুখপাত্র সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান। দলে ছিলেন প্রবীন নেতা তথা আইনজীবী আব্দুস সাত্তার। দলের সভাপতি সোমেন মিত্র সন্ময়বাবুর বাড়ির লোকেদের উদ্দেশে বলেছেন, আমরা আপনাদের পাশে আছি।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!