৫৭ বছরেই প্রয়াত হলেন গণশক্তির প্রাক্তন সম্পাদক অভীক দত্ত।

আজবাংলা  কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে মঙ্গলবার সকাল ৬-২০ মিনিট নাগাদ তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন বিশিষ্ট সাংবাদিক, গণশক্তি'র প্রাক্তন সম্পাদক অভীক দত্ত। ২০১৮ সালের ২ ডিসেম্বর দমদম নাগেরবাজারে একটি সভায় বক্তব্য রাখার সময় তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন অভীক দত্ত। বয়স হয়েছিল ৫৮বছর। বাম ছাত্র আন্দোলন থেকে উঠে এসেছিলেন অভীক দত্ত। প্রাক্তন সিপিএম রাজ্য সম্পাদক অনিল বিশ্বাসই তাঁকে দলীয় মুখপত্রের কাজে যুক্ত করেন। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের অত্যন্ত প্রিয় পাত্র ছিলেন অভীক দত্ত।তিনি সিপিআই(এম) পশ্চিমবঙ্গ রাজ‍্য কমিটির সদস্য ছিলেন। তাঁর জীবনাবসানে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ও সিপিআই(এম)-র রাজ‍্য সম্পাদক সূর্য মিশ্র।অভীক দত্তের স্ত্রী ও একমাত্র ছেলে বর্তমান। দীর্ঘ সাংবাদিকতার কেরিয়ার বেশ উজ্জ্বল অভীক দত্তর। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত অভীক দত্ত ‘গণশক্তি’ পত্রিকার সঙ্গেই কেরিয়ারের সবচেয়ে বেশি সময় ধরে যুক্ত ছিলেন। সেইসঙ্গে সিপিএমের সক্রিয় সদস্য থেকে রাজ্য কমিটির সদস্য। সাংবাদিকতা এবং সংগঠনের কাজ দু’টোই অত্যন্ত পারদর্শিতার সঙ্গে চালিয়ে গিয়েছেন। ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে ‘গণশক্তি’র সম্পাদক পদে উত্তীর্ণ হন তিনি। তার আগে পর্যন্ত তিনি পত্রিকার সহ-সম্পাদকের দায়িত্ব সামলেছেন। সে বছর বিদায়ী সম্পাদক নারায়ণ দত্তর স্থলাভিষিক্ত হন অভীক দত্ত। পাশাপাশি একটি ইলেকট্রনিক সংবাদমাধ্যমেরও ডিরেক্টর পদে যুক্ত হয়েছিলেন।২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে সেরিব্রাল স্ট্রোকে পর এক বছরেরও বেশি সময় ধরে তিনি টানা চিকিৎসাধীন ছিলেন। বেশিরভাগ সময়টাই ছিলেন কলকাতার বিখ্যাত এক বেসরকারি হাসপাতালে। কখনও বাড়িতেও ছিলেন। সপ্তাহখানেক আগেই ফের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকায় তাঁকে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। আজ সকালে সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। অভীক দত্তর মৃত্যুতে শোকের ছায়া সাংবাদিক মহলে।