৯৫ বছর বয়সে প্রয়াত হলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী ও বিশিষ্ট আইনজীবী রাম জেঠমালানি

জেঠমালানির মৃত্যুতে শোকাহত কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।
জেঠমালানির মৃত্যুতে শোকাহত কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

আজবাংলা দীর্ঘদিন ঘরে বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগে মৃত্যু হয়েছে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা দেশের বিশিষ্ট আইনজীবী রাম জেঠমলানি। জেঠমলানীর পরিবার সূত্রে খবর, রবিবার সকাল পৌনে ৮টা নাগাদ নয়াদিল্লিতে তাঁর বাসভবনেই মারা যান এই প্রবীণ আইনজীবী। তাঁর ছেলে মহেশ জেঠমলানী জানিয়েছেন, বেশ কিছু দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি । ১৯২৩ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর সিন্ধের শিকরপুরে জন্মেছিলেন রাম বুলচাঁদ জেঠমালানি।রাম জেঠমালানি চিরকালই এক দাপুটে সাফল্যময় জীবনের অধিকারী ছিলেন। ১৩ বছর বয়সে তিনি স্কুলে ডবল প্রোমোশন পেয়ে মেট্রিকুলেশন পাাশ করেন। মাত্র ১৭ বছর বয়সে প্রথম বিভাগে এলএলবি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। এর পর অবিভক্ত পাকিস্তানে কর্মজীবন শুরু করেন। তবে দেশভাগের পর তৎকালীন বম্বেতে এসে ফের শূন্য থেকে শুরু করেন তিনি।দীর্ঘ ৬ দশক ধরে সুপ্রিমকোর্ট ও হাইকোর্টের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মামলায় আইনজীবীর ভূমিকা পালন করেছিলেন তিনি। হর্ষদ মেহতা দুর্নীতি মামলা, আফজল গুরুর ফাঁসির আদেশ, জেসিকা লাল হত্যাকাণ্ড সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মামলায় আইনজ্ঞের ছাপ রেখেছেন তিনি। রাজীব গান্ধী হত্যা মামলাতেও তিনি অভিযুক্তদের হয়ে সওয়াল করেন।জরুরি অবস্থায় তাঁর নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। সেসময় তিনি বার অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান ছিলেন। আদালতে সওয়াল-জবাবের গণ্ডি ছাড়িয়ে পা রেখেছিলেন রাজনীতির আঙিনাতেও। জরুরি অবস্থার সময়েই নির্দল প্রার্থী হিসেবে উল্লাসনগরে ভোট ময়দানে উত্তীর্ণ হন তিনি। সেই থেকে রাজনীতিতে জায়গা করে নেন জেঠমালানি। অটলবিহারী বাজপেয়ী জমানার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জেটমলানী রাজস্থান থেকে রাজ্যসভার সাংসদ হিসাবেও নির্বাচিত হন। ২০১১-তে তাঁর মেয়ে রানি জেঠমলানীর মৃত্যু হয়। ৯৬ বছরের জন্মদিন পালন করতে আর মাত্র ৬ দিন বাকি ছিল তার আগেই প্রয়াত হলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাম জেঠমলানী। জেঠমালানীর মৃত্যুতে শোকাহতো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী । প্রধানমন্ত্রী বলেন মনের কথা সোজাসাপটা বলে দিতে পারতেন রাম জেঠমালানি। এটাই তাঁর চরিত্রের বড় দিক। এনিয়ে তাঁর কোনও ভয়ড়র ছিল না। জরুরি অবস্থায় সময়ে মানুষের বাক স্বাধীনতার জন্য তিন যেভাবে লড়াই করেছেন তা মানুষ মনে রাখবে। বিশিষ্ট আইনজীবী রাম জেঠমালানির মৃত্যুতে শোক প্রকাশ্ করেছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এক শোকবার্তায় তিনি বলেন, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও আইনজীবী জেঠমালানির মৃত্যুতে গভীর শোকাহত। যে কোনও ইস্যুতে তাঁর মত প্রকাশের কথা মানুষ মনে রাখবে। দেশে এক প্রখ্যাত আইনজীবীকে হারাল।জেঠমালানির মৃত্যুকে গভীর শোকাহত হলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি তাঁর বার্তার জানিয়েছেন, শুধুমাত্র একজন প্রতিভাবান আইনজীবীকে আমরা হারালাম না বরং একজন ভালো মানুষকেও হারালাম। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও আইনজীবী জেঠমালানির ছেলে মহেশ জেঠমলানীও দেশের নামজাদা আইনজীবী। এ দিন মহেশ জানিয়েছেন, আজ, রবিবার সন্ধ্যায় লোধি রোডের শ্মশানে রাজ জেঠমলানীর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।