বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে ফ্রান্স

France in the World Cup final
ফাইনালে ফ্রান্স

আজবাংলা মঙ্গলবার রাতে বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে বেলজিয়াম কে ১-০ গোলে হারিয়ে বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্স।  বিশ্বকাপের শুরু থেকেই যাদের বলা হচ্ছে কাপ জেতার অন্যতম দাবিদার। তার উপর এই দুই দলই বিশ্বকাপ থেকে ছুটি করে দিয়েছে লাতিন আমেরিকার তিন প্রাক্তন বিশ্বজয়ী দল ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়েকে। ইউরোপের দুই প্রতিবেশী দেশের সেমিফাইনালে দ্বৈরথে আরও একটি দেখার বিষয় ছিল। তা হল, ইউরোপের ক্লাব ফুটবলে বন্ধু বনাম বন্ধুর লড়াই। ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের পল পোগবা বনাম রোমেলু লুকাকু। ম্যান সিটির বেঞ্জামিন মেন্ডি বনাম ভ্যানসঁ কোম্পানি ও কেভিন দে ব্রুইন। বার্সেলোনার উসমান দেম্বেলে, স্যামুয়েল উমতিতি বনাম থমাস ভার্মালেন। চেলসির অলিভিয়ের জিহু, এনগোলো কঁতে বনাম এডেন অ্যাজার, থিবো কুর্তোয়া।

এই ধরনের আরো খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পাতায় লাইক করুন

বিশ্বকাপজুড়ে বেলজিয়াম দলের সবাই যেভাবে খেলেছে ফাইনালে ওঠার অসাধারণ সুযোগ ছিল তাদের সামনে। কে জানে ইংল্যান্ড কিংবা ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে হয়তো শিরোপাটাও জিতে নিতে পারত বেলজিয়াম! এসবের কিছুই সম্ভব হয়নি ফ্রান্সের স্যামুয়েল উমতিতি আর দেশমের কারণে! বেলজিয়াম-ফ্রান্স সেমিফাইনালে দেশম ঠাণ্ডা মাথায় পরিকল্পনা সাজিয়েছেন। দাবার ঘুটির মতো খেলোয়াড়দের দিয়ে চাল দিয়েছেন। সেটা কাজেও এসেছে উমতিতির হাত ধরে। এই বার্সা ডিফেন্ডারের একমাত্র গোলেই খুন হয়েছে বেলজিয়াম। বেলজিয়ামকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে ফ্রান্স। ৫১ মিনিটে এসে বার্সেলোনার ডিফেন্ডার স্যামুয়েল উমতিতির হেডে গোল পায় ফ্রান্স। পুরো খেলায় গ্রিজমান ছিলেন ছন্নছাড়া। প্রথমার্ধে তাঁর এলোমেলো শট, ভুল পাস ভালোই ভুগিয়েছিল ফ্রান্সকে। সেই গ্রিজমানের দুর্দান্ত ক্রস থেকেই হেডে গোল করেন উমতিতি। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে খেলায় গতি পায় ফ্রান্স। ৯৮৬ সালের পর আরও একবার সেমিফাইনালে উঠে সুযোগ হাতছাড়া করল রবার্তো মার্টিনেজের শিষ্যরা। সেমিফাইনালে বেলজিয়ামকে হারিয়ে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠে গেল ১৯৯৮’র চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স।