ময়মনসিংহে পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে ডাকাত ও মাদক ব্যবসায়ী নিহত ॥ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

Robbers and drug dealers killed in a friendship with the police
অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

সাইফুল ইসলাম ফয়সাল: আজবাংলা ময়মনসিংহ    ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাতে ডিবি পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে ডাকাত দলের সদস্য ও মাদক ব্যবসায়ী মোবারক হোসেন নিহত হয়েছে। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলি ভর্তি একটি পাইপগান ও মাদক দ্রব্য  উদ্ধার করেছে। এর আগে নিহত মাদক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ০১টি পিস্তল, ০৪ রাউন্ড গুলি ও আড়াইশত গ্রাম হেরোইনসহ তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানান, জেলার ভালুকা উপজেলার নয়নপুর গ্রামে বৃহস্পতিবার রাতে মাদক ক্রয়-বিক্রয় করছে, এ খবর পেয়ে গোয়েন্দা পুলিশের পৃথক দুটি টিম  অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী ও ডাকাত দলের সদস্য মোবারক হোসেনকে ০১টি পিস্তল, ০৪রাউন্ড গুলি ও ২৫০ গ্রাম হেরোইন সহ গ্রেফতার করা হয়। তাৎনিক  গ্রেফতারকৃত মোবারক পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে তার নিয়ন্ত্রণে আরো আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও মাদক থাকার কথা কথা স্বিকার  করে।

killed in a friendship with the police. Arms and bullets recovered
মোবারক হোসেন

পুলিশ রাতেই তাকে নিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও মাদক উদ্ধারে গেলে তার সহযোগী অন্যান্য অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ীরা গ্রেফতারকৃত মোবারককে পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিতে পুলিশকে ল্য করে অতর্কিত গুলি বর্ষন করতে থাকে। পুলিশ আত্মরার্থে গুলি চালালে উভয় পরে মাঝে গুলি বিনিময়ে ডাকাত দলের সদস্য ও মাদক ব্যবসায়ী (৩৮) গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এ সময় অন্যান্য মাদক ব্যবসায়ীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পালিয়ে যায। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলি ভর্তি একটি পাইপগান উদ্ধার করে। মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে পুলিশ কনস্টেবল শফিকুল ইসলাম ও মোজাম্মেল নামে দুইজন আহত হয়। গুলিবিদ্ধ ডাকাত দলের সদস্য ও মাদক ব্যবসায়ী মোবারক হোসেনকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। আহত পুলিশ সদস্যদের ময়মনসিংহ পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।  নিহত মাদক ব্যবসায়ী ও ডাকাত ভালুকার নয়নপুর গ্রামের মিয়ার উদ্দিনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ভালুকা মাদক, চুরি, ডাকাতি সহ থানায় ১০টিরও বেশী মামলা রয়েছে।