শিলচরের বিক্ষোভের মুখে কলকাতার কবি শ্রীজাত।

কবি শ্রীজাত
কবি শ্রীজাত

আজবাংলা শিলচর   এসো বলি’ নামে শিলচরের এক সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্বোধন অনুষ্ঠান উপলক্ষে শনিবার শিলচরের পার্ক রোডের একটি হোটেলে এসেছিলেন কবি শ্রীজাত। সেই সময় কবিকে ঘিরে গেরুয়া বাহিনীর জনা ১৫-২০ সমর্থক বিক্ষোভ দেখায় বলে অভিযোগ। প্রায় দু’ঘণ্টা ধরে তাঁরা বিক্ষোভ দেখান। হোটেলের সামনে উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা জড়ো হয়ে স্লোগান দিতে শুরু করেন। কিছুক্ষণ পরে হোটেল লক্ষ্য করে ঢিল ছুঁড়তেও শুরু করে উত্তেজিত জনতা। ভাঙে হোটেলের কাচও। এরপরই হোটেল কর্তৃপক্ষ অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার অনুরোধ করে। এমনকি কিছু লাইটও বন্ধ করে দেয় তাঁরা। কিন্তু বাইরে উত্তেজিত জনতার সামনে বেরোতে ভয় পান অনেকেই। অবশেষে ন’টা নাগাদ স্থানীয় কয়েকজন সাহস করে হোটেল থেকে বেরিয়ে আসেন। সেই সময় তাঁদের লক্ষ্য করে অশ্লীল গালাগালি করতে থাকে উত্তেজিত জনতা। পরে পুলিশ এসে কবি শ্রীজাতকে উদ্ধার করে। এই ঘটনাকে দুর্ভাগ্যজনক, অনভিপ্রেত বলে মন্তব্য করেছেন শ্রীজাত। পাশাপাশি, স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও সন্তোষ প্রকা্শ করেছেন তিনি। ঘটনার পর শ্রীজাতকে ফোন করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুরো বিষয়টির খোঁজ নেন। ওই হামলার কড়া সমালোচনা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মতে, বিজেপি বাংলা তথা ভারতীয় সং‌স্কৃতির প্রতি বিদ্বেষপরায়ণ। এ দিন রাতেই পুলিশি নিরাপত্তায় শিলচর সার্কিট হাউসে নিয়ে যাওয়া হয় শ্রীজাতকে।