প্রথম কো-অর্ডিনেশন কমিটির বৈঠকে গরহাজির শুভেন্দু অধিকারী, বাড়ছে জল্পনা

প্রথম কো-অর্ডিনেশন কমিটির বৈঠকে গরহাজির শুভেন্দু অধিকারী, বাড়ছে জল্পনা

আজবাংলা     তৃণমূলের নবগঠিত সমন্বয় কমিটির প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হল শুক্রবার। দলের শীর্ষনেতৃত্ব ছাড়াও এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের পরামর্শদাতা ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর। কমিটির ২১ সদস্যের মধ্যে যে চারজন বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন তাঁরা হলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, হিতেন বর্মণ, দেবু টুডু এবং মৃগাঙ্ক মাহাতো। রদবদলের পরে প্রথম বৈঠক তৃণমূলের কোঅর্ডিনেশন কমিটির। কিন্তু সে বৈঠকে অনুপস্থিত শুভেন্দু অধিকারী। তাঁদের মধ্যে একজন কোয়রান্টিনে থাকার কারণে বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি বলে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান। তবে রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী তথা তৃণমূলের নবগঠিত স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য শুভেন্দুর অনুপস্থিতির কারণ খুব স্পষ্ট করে ব্যাখ্যা করা হয়নি দলের তরফে।২৩ জুলাই ভার্চুয়াল বৈঠক করে দলে সাংগঠনিক রদবদল ঘটান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নতুন রাজ্যে কমিটি ঘোষণার পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সে দিন একটি ২১ জনের কমিটি গড়ে দেন। সেটিই কোঅর্ডিনেশন কমিটি। সাংগঠনিক কাজ দেখভালের দায়িত্ব মূলত ওই কমিটির উপরে থাকবে বলেই জানানো হয়। সেই কমিটির থেকে সাত জনকে নিয়ে আবার স্টিয়ারিং কমিটি গড়ে দেন তৃণমূলনেত্রী। ওই স্টিয়ারিং কমিটি হল কার্যত রাজ্যে স্তরের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারক কমিটি। শুভেন্দু অধিকারীকে দু'টি কমিটিতেই রাখা হয়েছে। কিন্তু জেলা পর্যবেক্ষকের পদটা উঠে যাওয়ায় দায়িত্ব কমে যায় 'নন্দীগ্রামের নায়কে'র। কারণ রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের যেসব পর্যবেক্ষকরা নানা জেলার দায়িত্বে ছিলেন তাঁদের মধ্যে অন্যতম পরিবহণমন্ত্রী তথা নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী।শুভেন্দু অধিকারীকে দু’টি কমিটিতেই রাখা হয়েছে। কিন্তু রদবদলের ৮ দিনের মাথায় কোঅর্ডিনেশন কমিটির প্রথম বৈঠকে শুভেন্দুকে দেখা গেল না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভায় শুভেন্দু এখনও গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ঠিকই, কিন্তু নেতৃত্বের একাংশের সঙ্গে তাঁর সমীকরণ বা তাঁর ক্ষোভ-অসন্তোষ নিয়ে নানা জল্পনা বেশ কিছু দিন ধরেই ছড়াচ্ছে রাজ্যের রাজনৈতিক শিবিরে। নন্দীগ্রাম আন্দোলনে যিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রধান সেনাপতি ছিলেন, তাঁর রাজনৈতিক অবস্থান বদলে যেতে পারে কি না, তা নিয়েও রাজ্যেজোড়া গুঞ্জন রয়েছে। তাই কোঅর্ডিনেশন কমিটি এবং স্টিয়ারিং কমিটিতে থাকা সত্ত্বেও প্রথম বৈঠকে তাঁর গরহাজিরা সেই সব জল্পনা এবং গুঞ্জনে ইন্ধন জুগিয়েছে। তৃণমূল সূত্রে অবশ্য জানা গিয়েছে যে, শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে কমিটির অন্য সদস্যদের কথা হয়েছে এবং পরের বৈঠকগুলোয় তিনি থাকবেন বলে শুভেন্দু জানিয়েছেন।