মালদা শহরে এবার হতে চলেছে গনি খান চৌধুরী মিউজিয়াম।

দেবু সিংহ আজবাংলা মালদাঃ শহরে এবার হতে চলেছে গনি খান চৌধুরী মিউজিয়াম। জেলা কংগ্রেস নেতাদের অনুরোধে সায় দিয়ে তাদেরকে জমি দিতে রাজি হয়েছে ইংরেজবাজার পৌরসভা। এই বিষয়ে কংগ্রেস এমএলএরা ইংরেজবাজারের পৌরসভার চেয়ারম্যান নিহার ঘোষের সাথে দেখা করে এসেছেন। চেয়ারম্যানকে একটি লিখিত অনুরোধ দিয়ে এসেছে জেলা কংগ্রেসের নেতারা। জেলা কংগ্রেসের সভাপতি মুস্তাক আলম বলেন, গনি খান চৌধুরী শুধু মালদা জেলার না সারা দেশের মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক নেতা ছিলেন। মালদা শহরে তার মূর্তিও বসেছে। এখন আমরা চাই বরকত সাহেবের নামে একটা পূর্ণাঙ্গ ভবন। ওই ভবনে বরকত সাহেবের সঙ্গে যুক্ত বিভিন্ন সামগ্রী রাখা হবে। রাখা হবে বরকত সাহেবের ব্যবহার করা বিভিন্ন জিনিস পত্র, তাকে নিয়ে পত্রপত্রিকায় বেড়ানো খবরের কাটিং, বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব দের সঙ্গে গনি খান চৌধুরীর ছবি ইত্যাদি নানা জিনিসপত্র। এই সংগ্রহশালা তৈরি হলে আগামী প্রজন্মের মানুষও বরকত সাহেব সম্বন্ধে কিছু জানতে পারবেন। মানিকচকের কংগ্রেস এমএলএ মুত্তাকিন আলম বলেন, আমাদের ইচ্ছা আছে এই ভবন তৈরি হলে জেলা কংগ্রেসের দপ্তর সেখানে নিয়ে যাবার। এছাড়াও ওই ভবনে আর কি কি করা যেতে পারে তা নিয়ে চিন্তাভাবনা চলছে। ওল্ড মালদার কংগ্রেস এমএলএ অর্জুন হালদার বলেন, আমরা প্রায় এক বিঘা জমি চেয়েছি। সেই জমিতে অত্যাধুনিক গনি খান চৌধুরী ভবন তৈরি করতে চাই। গ্রামের কংগ্রেস কর্মীরা দলের প্রয়োজনে মালদায় এলে যেন সেখানে থাকতে পারেন তা ভেবে দেখার জন্য জেলা সভাপতিকে অনুরোধ করেছি।
মুস্তাক আলম বলেন, এই ভবন তৈরীর কাজে কংগ্রেসের নেতা কর্মী ও বিধায়করা যতটা পারেন সাহায্য করবেন। পুরুলিয়ার প্রবীণ কংগ্রেস এমএলএ নেপাল মাহাতো 1 লক্ষ টাকা দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। জমি পাওয়া গেলে গনি খান চৌধুরী সংগ্রহশালা তৈরি করতে দেরি হবে না। তিনি বলেন, অনেকে বরকত সাহেবের সম্পর্কে জানতে চান, গবেষণা করতে চান। সংগ্রহশালা তৈরি হলে সেই কাজে অনেক সুবিধা হবে। ইংরেজবাজার পৌরসভার চেয়ারম্যান নিহার ঘোষ বলেন, গনি খান চৌধুরী সকলের কাছেই প্রিয় ছিলেন। তিনি জেলা, রাজ্য তথা দেশের প্রথম সারির নেতা ছিলেন। মালদার উন্নয়নের জন্য বরকত সাহেব যা করেছেন তার তুলনা নাই। আমরা তাই কংগ্রেস বিধায়কদের প্রস্তাবে সাথে সাথে সাড়া দিয়েছি। জমির খোঁজ চলছে। উপযুক্ত জমি পাওয়া গেলেই কংগ্রেস এম এল এ দের জানিয়ে দিব।এই প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছেন ইংরেজবাজার পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যান বাবলা সরকারও। তিনি বলেন, রাজ্যের রাজনীতিতে দুজন মানুষকে কেউ ভুলবে না। একজন মমতা ব্যানার্জি আরেকজন গনি খান চৌধুরী। মমতাদিকে বরকত দা খুব ভালোবাসতেন। আমি ও নিহার দা বরকত সাহেবের নামে এই ভবন তৈরিতে সব রকম সাহায্য করবো। নিহারদা বিষয়টা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে কথা বলে নেবেন। জমি পেতে কোন রকম সমস্যা হবে না।