এই অ্যাপটির মাধ্যমে প্রায় ২ কোটি ইউজারের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা।

এই অ্যাপটির মাধ্যমে প্রায় ২ কোটি ইউজারের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা।

আজ বাংলা:   আপনি কি BigBasket অ্যাপ ব্যবহার করেন? তাহলে আজই সাবধান! সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে যে, এই অ্যাপটির মাধ্যমে প্রায় ২ কোটি ইউজারের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা। ইতিমধ্যেই বেঙ্গালুরুর সাইবার ক্রাইম সেলে এ নিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বিগ বাস্কেট। 

এদিকে গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন সাইবার সেলের তদন্তকারীরা। চলমান করোনা কালে গৃহবন্দি থাকার জেরে বেড়েছে অনলাইন শপিংয়ের প্রবণতা। সংক্রমণ এড়াতে স্মার্টফোনে BigBasket অ্যাপটি নামিয়ে অনেকেই বাড়ি বসেই অর্ডার দিয়েছেন শাক-সবজি থেকে মাছ, চাল-ডাল-সহ রান্নাঘরের যাবতীয় প্রয়োজনীয় জিনিস।

অনেকদিন ধরেই ক্রেতাদের দোরগোড়ায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পৌঁছে দিচ্ছে বিগ বাস্কেট। তবে অতিমারীর সময় তা আরও জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। লাফিয়ে বাড়ে ইউজারের সংখ্যাও। সব ঠিকঠাকই ছিল। কিন্তু এবার হ্যাকারদের পাল্লায় পড়ল প্রায় দু’কোটি ইউজারের অ্যাকাউন্ট। এই অ্যাপে দেওয়া ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করেছে ওই হ্যাকাররা, এমনটাই অভিযোগ।

 

শুধু তাই নয়, সংস্থার তরফে আরও অভিযোগ করা হয় যে হ্যাকাররা নাকি ইউজারদের সমস্ত গোপন তথ্য ডার্ক ওয়েবে (অনলাইনে যেখানে বেআইনি কাজ হয়) বিক্রি করে দিচ্ছে। যার বিনিময়ে ৩০ লক্ষ টাকা আয় হয়েছে হ্যাকারদের।

এ বিষয়ে সাইবার ক্রাইম সেলের তরফে Cyble জানায়, গত মাসের ১৪ তারিখেই এই ঘটনার কথা জানা যায়। এমনকী বিগ বাস্কেট ম্যানেজমেন্টকে পয়লা নভেম্বর সে কথা বলাও হয়। খোঁজ নিয়ে দেখা গিয়েছে, সত্যিই ইউজারদের ডেটা ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করা হচ্ছে। 


ক্রেতার নাম, পাসওয়ার্ড, জন্ম তারিখ, ফোন নম্বর থেকে বাড়ির ঠিকানা, আইপি অ্যাডরেস সবই চলে গিয়েছে হ্যাকারদের দখলে। এমনটা কীভাবে ঘটল, তা চিহ্নিত করে বিষয়টি দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে।

একইসঙ্গে ইউজারদেরও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। উল্লেখ্য, বেঙ্গালুরুর এই সংস্থায় ২৮ শতাংশ স্টেক রয়েছে চিনের Alibaba-র। তাই ইউজারদের তথ্য হ্যাক হওয়ায় নতুন করে ক্রেতাদের সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেল।