দেড় লক্ষের, খুনের পর মিললো ২৬০০ টাকা উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

half million, after the murder, the amount of Rs
দেড় লক্ষের, খুনের পর মিললো ২৬০০ টাকা

আজবাংলা  দার্জিলিংঃ  কথা হয়েছিল খুন করলে মিলবে দেড় লক্ষ টাকা। কিন্তু শেষে মিলেছে ২৬০০ টাকা। সম্প্রতি শিলিগুড়ির ফুলবাড়ি বিস্কুট কারখানার এক শ্রমিকের খুনের ঘটনার তদন্তে নেমে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এলো যখন অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। অভিযুক্তকে জেরার পর দোসর প্রেম নয়, ভারাটে খুনির তথ্যই স্পষ্ট হচ্ছে স্ত্রী’র চক্রান্তে স্বামী খুনের ঘটনায়। গত জুলাই মাসের ১২তারিখে শিলিগুড়ির ফুলবাড়ি সংলগ্ন কাঞ্চনবাড়ি অঞ্চলে একটি বিস্কুট কারখানার কর্মরত নিতাই ভৌমিক নামে এক শ্রমীক হঠাৎ করে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার ঘটনায় তদন্তে নামে পুলিশ। এরপর তার স্ত্রী পূরবী ভৌমিকও নিখোঁজ হয়ে যায়। পরে তদন্ত জোরদার করলে পুলিশ নিতাই বাবুর বাড়ির পেছন থেকেই তার ক্ষত বিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ধরনের আরো খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পাতায় লাইক করুন

 

 

বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি করে গ্রেফতার করা হয় পূরবী ভৌমিক’কে। গ্রেফতারের পর জেরায় পূরবী জানায় এই খুনের সঙ্গে জরিত রয়েছে দুই যুবক। যাদের মধ্যে মূল খুনি হিসেবে নাম উঠে আসে রতন বর্মন নামে এক যুবকের। এরপর সেই যুবকদের খোঁজ খবর শুরু করে পুলিশ। শেষে পুলিশ রতন বর্মনের সন্ধান পায়। বৃহস্পতিবার রাতে চ্যাংমারির কাছ থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। জানা গেছে, রতনকে গ্রেফারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পারে, কাঞ্চনবাড়িতে কাজ করতো রতন। সেসময় পূরবীর সঙ্গে পরিচয় হয়। পুলিশকে রতন জানায়, পূরবী তাকে বলেছিল দেড় লক্ষ টাকা দেওয়া হবে তার স্বামীকে খুন করলে। সেইমত রতনের সঙ্গে পূরবীর একটি মৌখিক চুক্তি হয়। পরে ১২জুলাই বাড়ির জানালা খুলে রতনকে ভেতরে ঢোকায় পূরবী। ঘুমন্ত অবস্থায় গলা কেটে খুন করা হয় নিতাইকে।