বাংলা-সহ ১০ রাজ্যে ভারী বৃষ্টির সতর্কতা হাওয়া অফিসের

বাংলা-সহ ১০ রাজ্যে ভারী বৃষ্টির সতর্কতা হাওয়া অফিসের

উত্তরবঙ্গে সময়ের আগে প্রবেশ করেছে বর্ষা। কিন্তু, এরপরেই কার্যত 'হারিয়ে গিয়েছিল' মৌসুমী বায়ু। এরপর সময়ের অনেক পরেই দক্ষিণবঙ্গে বর্ষার প্রবেশ। কিন্তু, কোনও নিম্নচাপ বা ঘূর্ণাবর্তের সহযোগিতা না থাকায় দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা অপেক্ষাকৃত দুর্বল। দক্ষিণ পশ্চিমী বাতাসে ভর করে জলীয় বাষ্প উত্তরবঙ্গে ও উত্তর পূর্ব দিকের রাজ্যগুলিতে যাচ্ছে।

এর ফলে বৃষ্টি না হলে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি । আগামী পাঁচ দিন পশ্চিমবঙ্গ-সহ দেশের বিভিন্ন রাজ্যে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিল জাতীয় আবহাওয়া দফতর। ২৬ থেকে ২৯ জুন গোয়া, কর্নাটক, মহারাষ্ট্র, কেরল, গুজরাতের মতো পশ্চিম উপকূলের রাজ্যগুলির পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গ, সিকিম, ওড়িশা, বিহার, ঝাড়খণ্ডেও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

 জুন মাসের গোড়াতেই আরব সাগর বরাবর পশ্চিম উপকূলের রাজ্যগুলিতে বর্ষা ঢুকে পড়েছে। ভারী বর্ষণে সিক্ত বহু এলাকা। বঙ্গোপসাগর হয়ে বর্ষার মেঘ ঢুকে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গ, মেঘালয়, অসম-সহ পূর্ব ভারতের একাংশে। তবে দেশ জুড়ে বর্ষা আসতে এখনও কয়েক দিন বাকি বলে সম্প্রতি আবহাওয়া দফতর জানিয়েছিল। ৬ জুন দেশ জুড়ে বর্ষা নামার সম্ভাব্য দিন বলে তারা ঘোষণা করেছিল।

তার আগেই এ বার দেশের বিভিন্ন অংশে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল হাওয়া অফিস। শনিবারের সেই পূর্বাভাসে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, ২৫, ২৬, ২৭, ২৮ ও ২৯ জুন ওড়িশার বিভিন্ন অংশে বিক্ষিপ্ত ভাবে ভারী বৃষ্টিপাত হবে। সঙ্গে বজ্র-বিদ্যুতের পূর্বাভাস রয়েছে। ওড়িশার বারগড়, ঝারসুগুদা, সম্বলপুর, সুন্দরগড়, দেওগড়, কেওনঝাড়, ময়ূরভঞ্জ, মালকানগিরি, কোরাপুট, রায়গুদা, গজপতিতে রবিবারে থেকে পরবর্তী পাঁচ দিন ‘ইয়েলো অ্যালার্ট’ জারি হয়েছে।

পূবালি হাওয়ার দাপটে উত্তরাখণ্ড ও পূর্ব উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন এলাকাতেও বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ২৭ থেকে ২৯ জুন হিমাচল প্রদেশে ও উত্তরাখণ্ডে ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি হয়েছে। মধ্যপ্রদেশের বিদর্ভ, ছত্তীসগঢ়ের কিয়দংশ-সহ গাঙ্গেয় দক্ষিণবঙ্গেও আগামী পাঁচ দিন মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে আবহবিদেরা জানিয়েছেন। বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে উত্তর ভারতেও। পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী কয়েক দিনে দিল্লি-সহ সংলগ্ন এলাকায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিতে চড়া গরম থেকে স্বস্তি মিলতে পারে।