সীমান্ত পেরিয়ে অবশেষে পাইকারি মাছ বাজারে এল পদ্মার ইলিশ

সীমান্ত পেরিয়ে অবশেষে পাইকারি মাছ বাজারে এল  পদ্মার ইলিশ

আজবাংলা     সোমবার সন্ধ্যায় পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে দু’টি ট্রাকে এ দেশে ঢোকে পদ্মার ইলিশ। মঙ্গলবার সেই মাছ চলে আসে হাওড়ার আড়তে। রাজ্যের ইলিশ আমদানিকারী সংস্থা ‘ফিশ ইমপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন’-এর সম্পাদক সৈয়দ আনোয়ার মকসুদ বলেন, ‘‘পুজোর আগে পদ্মার ইলিশ এ পারে এল, সেটা ভেবেই ভাল লাগছে।

মানুষ কী অধীর আগ্রহে ইলিশের জন্য অপেক্ষা করছেন, তা আমরা জানি। মাছ আসার পরিমাণ বাড়লে দামও নাগালে থাকবে। এ দিনই ৫০০ থেকে ১২০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ বিক্রি হয়েছে ৬০০ টাকা থেকে শুরু করে ১২০০-১৩০০ টাকা কেজি দরে।’’সংস্থার সম্পাদক জানান, বাংলাদেশ যাতে ইলিশ রফতানির উপরে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়, তার জন্য ২০১২ সাল থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে।

কিন্তু তা না-তুললেও গত বছর পুজো উপলক্ষে ৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ পাঠিয়েছিল ভারতের পড়শি রাষ্ট্রটি। আর এই বছর পুজো উপলক্ষে ১৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ দেওয়ার কথা। ইতিমধ্যেই সোমবার ২০ মেট্রিক টন মাছ এসে গিয়েছে। বুধবারের মধ্যে আরও প্রায় ৩০ মেট্রিক টন ইলিশ আসবে। ফলে চাহিদা অনেকটাই মিটবে বলে আশা ব্যবসায়ীদের।

বাংলাদেশ সরকার, কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার একযোগে সাহায্য করায় এটা সম্ভব হয়েছে বলে ‘ফিশ ইমপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন’ মনে করছে।দেশের চাহিদা মেটাতে ২০১২ সাল থেকে বাংলাদেশ সরকার ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ রেখেছে। তবে গত বছর দুর্গাপুজোর সময় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পশ্চিমবঙ্গে ৫০০ টন ইলিশ রপ্তানির ব্যবস্থা করেছিলেন।

তবে ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রতি বছর হাজার হাজার টন ইলিশ চোরাই পথে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতে পাচার হত। সে কারণে ইলিশের বাজার চাঙ্গা থাকত। এ বছরও পাচার হওয়ার সময় প্রায় ২ হাজার ৮০০ কেজি ইলিশ পাকড়াও করেছে বিএসএফ।

ইলিশ কিনতে বাঙালি যে কতটা আগ্রহী, এ দিন হাওড়ার পাইকারি মাছ বাজারের ছবি দেখেই তা বোঝা গিয়েছে। পাইকারি মাছ বাজারের আড়তদারদের আশা, এই উৎসাহ দেখে বাংলাদেশ সরকার ভবিষ্যতে ইলিশ রফতানির উপরে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে।