হিন্দু নেতারা আমায় ডাকেন না, অভিযোগ কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদের

Congress leader Ghulam Nabi Azad
কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ

আজবাংলা উত্তরপ্রদেশের লখনৌয়ে আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১তম বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বুধবার যোগ দেন গুলাম নবি আজাদ। আমাকে লোকে প্রচারে ডাকতে ভয় পাচ্ছে , হিন্দু ভোট হারানোর আশঙ্কা করছেন তাঁরা”। ৯৫ শতাংশ হিন্দু ভাই ও নেতা আমায় ডাকতেন। মাত্র ৫ শতাংশই ছিলেন মুসলিম ভাই। সেই প্রেক্ষাপট আমূল বদলে গিয়েছে বলে দাবি করেছেন আজাদ। তাঁর কথায়,”গত চার বছরে লক্ষ্য করেছি, ৯৫ শতাংশেপ পরিসংখ্যান ২০ শতাংশে ঠেকেছে।  হিন্দু নেতারা আমাকে ভোটের প্রচারে বা জনসভায় বক্তব্য রাখতে আমন্ত্রণ জানাতেন, এখন তার সিকিভাগও আমন্ত্রণ আসে না। কারণ তাঁরা ভয় পান। গত চার বছরে দেশের সামাজিক পরিবেশে অনেক পরিবর্তন ঘটেছে। যার ফলে মানুষের মনেরও পরিবর্তন ঘটেছে।” আজাদের এই বক্তব্য প্রকাশ্যে আসার পরেই তাঁর সমালোচনায় মুখর হয়েছে বিজেপি। হিন্দুদের খাটো করার জন্যই এমন মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ করে গেরুয়া শিবির। গুলাম নবি আজাদের এহেন মন্তব্যই কংগ্রেসকে বেকায়দায় ফেলেছে। তাঁদের সমালোচনায় বিদ্ধ করতে শুরু করেছে বিজেপি। এই মন্তব্যের দ্বারা আসলে গুলাম নবি আজাদ হিন্দুদের অপমান করতে চেয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্র। রাজনৈতিক মহলের মতে, কংগ্রেসের হিন্দু নেতারাই আজাদকে ডাকছেননা? এতে বিজেপি কি করবে? গুজরাট নির্বাচনের প্রচারপর্বেই নরম হিন্দুত্বের পথে হাঁটতে শুরু করেছেন রাহুল গান্ধী। আসন্ন পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের আগেও মন্দিরে মন্দিরে ঢুঁ মারছেন কংগ্রেস সভাপতি। সম্ভবত কংগ্রেসের এই নয়া কৌশলে খাপ খাচ্ছেন না আজাদ। আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়কে বিজেপি বদনাম করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন আজাদ। সেই অভিযোগ খারিজ করে সম্বিতের মন্তব্য, সন্ত্রাসবাদীদের জন্য প্রার্থনাসভা হলে নিন্দা হবেই। আজাদ হিন্দুদের অপমান করেছেন বলেও দাবি করেছেন সম্বিত পাত্র। বলেন ইচ্ছাকৃত ভাবে হিন্দুদের অপমান করতে চাইছেন কংগ্রেস নেতারা।