পাকিস্তানে ইসলাম বিরোধী ভুয়ো মন্তব্যকে কেন্দ্র করে হিন্দু মন্দির ও বাড়িতে ভাঙচুর

হিন্দু মন্দির ও বাড়িতে ভাঙচুর
হিন্দু মন্দির ও বাড়িতে ভাঙচুর

আজবাংলা ভারতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন সংখ্যালঘুরা। কয়েকদিন আগেই এহেন বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কিন্তু তাঁর নিজের দেশেই যে বিপন্ন সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষজন।ইসলাম বিরোধী ভুয়ো মন্তব্যকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভে উত্তাল পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের শহর ঘোটকি। বিক্ষোভ কিছুটা আয়ত্বে এলেও ইতিমধ্যেই সেখানে বেশকিছু হিন্দু মন্দির ও বাড়িঘরে হামলা চালিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।মন্দিরের বিগ্রহ এবং ধর্মগ্রন্থ গীতা–সহ বেশ কিছু ধর্মীয় পুস্তক আগুনে পুড়িয়ে দেয় তারা। সিন্ধ পাবলিক স্কুলের অধ্যক্ষ নোটন দাসের বিরুদ্ধে নবির বিরুদ্ধে অপমানজনক মন্তব্য করার অভিযোগ করেন এক অভিভাবক। এনিয়ে থানায় এফআইআরও করা হয়। কিছু সেই খবর ছড়িয়ে পড়তেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে শহর। যদিও পাক সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সিন্ধ পাবলিক স্কুলের অধ্যক্ষ নোটন দাস বলেন আমি নবির বিরুদ্ধে অপমানজনক কোন মন্তব্য করিনি। মিথ্য ভাবে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে আমাদের হিন্দু সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর আক্রমণ করাহচ্ছে। মন্দির ভাঙচুরের ঘটনায় এলাকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে স্থানীয় থানায় অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি হিন্দু সম্প্রদায়ের তরফে একটি প্রতিবাদ মিছিলও বের করা হয়। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের দাবি, অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!