আগরতলায় স্বামী ও শ্বাশুড়ী মিলে গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ

মৃত্যু হল এক গৃহবধুর। 
মৃত্যু হল এক গৃহবধুর। 

আজবাংলা আগরতলা (ত্রিপুরা): রহস্যজনক ভাবে আগুনে পুড়ে মৃত্যু হল এক গৃহবধূর  এই ঘটনা রাজধানী আগরতলার ইন্দ্রনগর এলাকায় বৃহস্পতিবার(২৯ আগস্ট)। দুপুরবেলা  ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় বাড়ির ছাদে গৃহবধূর পোড়া মৃতদেহ পড়ে আছে আর মৃতদেহের পাশে রাখা পোড়া বাঁশ, কাঠ থেকে ধোয়া বেরোচ্ছে। ছাদের উপর ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে হাতের ভাঙ্গা শাঁখা-পলার টুকরো। মৃত গৃহবধূর নাম সোমা দেবনাথ, তার স্বামীর নাম সুমিত দাস। এই ঘটনা প্রত্যক্ষ করে ক্ষোব্দ এলাকাবাসী মৃতার স্বামী সুমিত দাস কে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। সেইসঙ্গে সুমিতের মাকেও পুলিশ গ্রেফতার করে ক্যাপিটাল কমপ্লেক্স থানায় নিয়ে যায়। এলাকাবাসীর অভিযোগ প্রায় প্রতিদিন সুমিত তার স্ত্রীকে মারধোর করতো। এদিন সকালেও সে তার স্ত্রীকে মারধর করে বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান ক্যাপিটাল কমপ্লেক্স এলাকার মহকুমা পুলিশ কর্মকর্তা(এস ডি পি ও) মিহির দাস। তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানান ঘটনা দেখে বোঝাই যাচ্ছে আগুনে পুড়ে মহিলার মৃত্যু হয়েছে। তবে এটা আত্মহত্যা না পুড়িয়ে মারা হয়েছে তা তদন্তের পর বুঝা যাবে। সেইসঙ্গে তিনি আরো জানান ফরেনসিক গবেষণা টিম ঘটনাস্থলে এসে আলামত সংগ্রহ করেছে। পাশাপাশি একটি মামলা নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। এই ঘটনায় এলাকাবাসী ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। সেইসঙ্গে তারা আটক সুমিত ও তার মা’র দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন। এই প্রসঙ্গে উল্লেখ্য যে সোমা ও সুমিতের একটি বছর চারেকের শিশুপুত্র রয়েছে এই ঘটনার জেরে গোটা ইন্দ্রনগর এলাকাজুড়ে তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!