মাত্র ১ ঘণ্টায় করোনা টেস্টের রিপোর্ট, আর খরচ ৪০০ টাকা! আবিষ্কারে হৈচৈ

মাত্র ১ ঘণ্টায় করোনা টেস্টের রিপোর্ট, আর খরচ ৪০০ টাকা! আবিষ্কারে হৈচৈ
আজ বাংলা: দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। এদিকে সংক্রমণ রুখতে বেশি করে টেস্টের উপরে জোর দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এই পরিস্থিতিতে খড়্গপুর IIT-র গবেষকরা এমন একটি ছোট যন্ত্র আবিষ্কার করেছেন যার মাধ্যমে মাত্র ১ ঘণ্টায় টেস্টের রিপোর্ট জানা যাবে। হ্যাঁ শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। বর্তমানে করোনা টেস্টের জন্য ল্যাবরেটরি এবং RT-PCR মেশিনের প্রয়োজন হয়, যা খরচসাপেক্ষ। কিন্তু খড়্গপুর IIT-র গবেষকদের আবিষ্কার করা ছোট্ট এই করোনা টেস্ট যন্ত্রটি খুবই সস্তার। এটি ব্যবহার করা হলে আগামী দিনে ল্যাব বা RT-PCR মেশিনের প্রয়োজন ফুরোবে। ফলে বিশ্বজুড়ে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যাবে পরিষেবা। বর্তমানে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলিতে বিনামূল্যে করোনা টেস্ট করা হলেও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলিতে রোগীদের টাকা দিয়ে এই টেস্ট করাতে হচ্ছে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলি কোভিড টেস্টের জন্য রোগীদের থেকে সর্বোচ্চ সাড়ে ৪ হাজার টাকা নিতে পারবে বলে ICMR গাইডলাইন তৈরি করে দিয়েছে। খড়্গপুর IIT-র তৈরি যন্ত্র বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করা হলেও কোনও ব্য়ক্তি করোনায় আক্রান্ত কি না, তা জানার খরচ দশ ভাগের এক ভাগের নেমে আসবে। তখন সমস্ত কিছু ধরে করোনার টেস্টের জন্য ৪০০ টাকারও কমে খরচ পড়বে। এর ফল জানা যাবে স্মার্টফোনে অ্যাপের মাধ্যমে। প্রতি ক্ষেত্রেই রিপোর্ট সম্পূর্ণ সঠিক আসবে বলে দাবি এই যন্ত্রের আবিষ্কারকদের। সংকটকালে দেশে হইচই ফেলে দেওয়া করোনা টেস্টিং যন্ত্রটি আবিষ্কার করেছেন খড়্গপুর IIT-র দুই বাঙালি বিজ্ঞানী। তাঁরা হলেন, স্কুল অফ বায়োসায়েন্সের ডক্টর অরিন্দম মণ্ডল এবং মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক সুমন চক্রবর্তী। এই যন্ত্র প্রসঙ্গে ডক্টর মণ্ডল বলেছেন, 'ছোট্ট এই যন্ত্রটি শুধু কোভিড-১৯ নয়, এর মাধ্যমে অন্য ধরনের RNA ভাইরাসও শনাক্ত করা সম্ভব। একই জেনেরিক পদ্ধতি অনুসরণ করে এই সমস্ত টেস্ট করা সম্ভব হবে। যে কারণে এই যন্ত্রের প্রভাব সুদূরপ্রসারী। আগামী দিনে যদি কোনও ভাইরাসের সংক্রমণ মহামারীর আকার নেয়, তখনও এই যন্ত্র সমানভাবে তার কার্যকারিতার স্বাক্ষর রাখতে পারবে।'