বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্রের ডিলার ও বোমা কারখানার মালিক ইব্রাহিম শেখ গ্রেপ্তার

আজবাংলা দুর্গাপুর দীর্ঘদিন ধরে রমররিয়ে ব্যবসা চালালেও অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ল দুর্গাপুর ফরিদপুর থানার লাউদোহার কালিনগরের বাসিন্দা ইব্রাহিম শেখ।আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্রের ডিলার ও বোমা তৈরির কারখানা রয়েছে ইব্রাহিম শেখের। সূত্রের খবর একটা 'পেটো' মাত্র ৫০ টাকা। দশটার বেশি কিনলে মেলে পাইকারি দরে। যদিও গুণমান অনুযায়ী পালটায় দাম। যে বোমার তীব্রতা যত বেশি, তার দাম ততই বেশি। শুধু তাই নয়। টাকা ফেললেই পাওয়া যাবে দেদার আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র।আর অর্ডার অনুযায়ী বোমা তৈরির জন্য কারখানায় ১৫ জন শ্রমিকও রয়েছেন। শ্রমিকরা বেশিরভাগই বীরভূমের বাসিন্দা।দুর্গাপুর ফরিদপুর থানার পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মুলত রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীরাই ইব্রাহিম শেখের খদ্দের। তাই একের পর একভোট থাকায় ইব্রাহিমের ব্যাপক কদর ছিল রাজনৈতিক দলগুলির কাছে। দেদার বিক্রি হয়েছে বোমা ও আগ্নেয়াস্ত্র, পুলিশি জেরায় এমনটাই জানিয়েছে ইব্রাহিম।বছর দশেক আগে বোমা বাঁধতে গিয়েই ডান হাতের আঙুল উড়ে যায় ইব্রাহিমের। দুটো চোখও ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এরপর নিজে হাতে বোমা তৈরি না করে কারখানাই খুলে ফেলে ইব্রাহিম শেখ। গোপন সূত্রের খবরের ভিত্তিতে শুক্রবার ফরিদপুর থানার পুলিশ ইব্রাহিমের কালিনগরের বাড়িতে হানা দেয়। ঘরেই ছিল ইব্রাহিম শেখ। তাকে জেরা করে তার ঘরে গোয়াল ঘর থেকে ৮ এমএম পাইপগান ও ৮ টি কার্তুজ উদ্ধার করে পুলিশ।আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের ডিসি-১ (পূর্ব) অভিষেক গুপ্তা জানান, 'বোমা কারখানা ও আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবসার কথা স্বীকার করে নিয়েছে অভিযুক্ত। ধৃত ইব্রাহিম শেখকে শনিবার দুর্গাপুর মহকুমা আদালতে তোলা হলে তাকে সাতদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেয় মহকুমা আদালত।