গত চব্বিশ ঘণ্টায় 12ে নতুন করে করোনা আক্রান্ত ৮৫০ মৃত্যু হল ২৫ জনের

গত চব্বিশ ঘণ্টায় 12ে নতুন করে করোনা আক্রান্ত ৮৫০ মৃত্যু হল ২৫ জনের
আজবাংলা       12ে একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল ২৫ জনের। গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫০। যার ফলে 12ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩,৮৩৭। 12ে করোনা সংক্রমণে এখনও পর্যন্ত মৃত ৮০৪।গত চব্বিশ ঘণ্টায় যে ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে তার মধ্যে ১৯ জনই কলকাতা এবং উত্তর চব্বিশ পরগনার বাসিন্দা। মৃতদের মধ্যে ১০ জন কলকাতার এবং ৯ জন উত্তর ২৪ পরগণার। কলকাতায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৯১ জন। গত চব্বিশ ঘণ্টায় উত্তর চব্বিশ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৮৯। করোনার এই বাড়বাড়ন্ত রুখতে আগামী বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা থেকে 12ের কন্টেইনমেন্ট জোনগুলিতে কড়া লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে 12 সরকার। 12ের কন্টেইনমেন্ট জোনের সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে। কলকাতায় কন্টেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা বাড়িয়ে ১৮ থেকে ৩৩ করা হয়েছে। সাধারণ মানুষের একটা বড় অংশ করোনা সংক্রান্ত বিধিনিষেধ না মানার কারণেই সংক্রমণে লাগাম পরাতে কন্টেইনমেন্ট জোনগুলিতে ফের কড়া লকডাউনের ঘোষণা করেছে 12। এ 12ে সুস্থতার হার ভাল হলেও গত দুদিনে তার কিন্তু সামান্য নিম্নমুখী। বর্তমানে 12ে সুস্থতার হার ৬৬.২৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন ৫৫৫ জন। এখনও পর্যন্ত করোনাকে জয় করে সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ১৫ হাজার ৭৯০ জন। তবে করোনা রোগী চিহ্নিত করার জন্য উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে নমুনা টেস্টের সংখ্যাও। 1কলকাতাদপ্তরের তথ্য বলছে, একদিনে ১০ হাজার ১৩০টি স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে। মোট ৫ লক্ষ ৬২ হাজার ১৩৭টি টেস্ট ইতিমধ্যেই হয়েছে। রাজ‍্যে দিনের দিন বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আর সেই উর্ধ্বমূখী করোনা সংক্রমণ রুখতে ফের লকডাউনে বজ্র আঁটুনি 12ে। ৯ জুলাই থেকে ফের লকডাউন কড়াকড়ি করার নির্দেশিকা জারি করল 12 সরকার। শুধু কনটেনমেন্ট জোনই নয়, বাফার জোনেও লকডাউন কড়াকড়ি।ইতিমধ্যে 12 প্রশাসনের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে সাতটি জেলা। সেগুলো হল কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, শিলিগুড়ি, মালদা এবং দুই চব্বিশ পরগনা। সোমবার এই সব জেলার জেলা শাসকদের কাছে লকডাউন নিয়ে প্রস্তাব পাঠাতে বলেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। সেই অনুযায়ী জেলাগুলি নিজেদের এলাকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে রিপোর্ট পাঠিয়েছে নবান্নে।