পশ্চিমবঙ্গে একদিনে করোনা আক্রান্ত প্রায় ২,২০০, মৃত ২৭

পশ্চিমবঙ্গে একদিনে করোনা আক্রান্ত প্রায় ২,২০০, মৃত ২৭
আজবাংলা     এই প্রথম সব রেকর্ড ভেঙে দিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজারের গণ্ডি পার করল। এদিকে একদিন সুস্থও হয়েছেন রেকর্ড সংখ্যক মানুষ। ২৪ ঘন্টায় 12ে আক্রান্ত হয়েছেন ২১৯৮ জন। একদিনে 12ে মৃত্যু হয়েছে ২৭জনের। করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১২৮৬জন। অতএব 12ে এখন সক্রিয় চিকিত্‍সাধীন, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৫, ৫৯৪জন। এই পর্যন্ত 12ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪০,২০৯জন। 12ে মোট করোনা মুক্ত হয়েছেন ২৩,৫৩৯জন। 12ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১০৭৬ জনের। 12ে সুস্থ হয়ে ওঠার হার ৫৮.৫৪শতাংশ। শনিবার এমনটাই জানানো হয়েছে 12ের 1কলকাতা দফতরের জারি করা বুলেটিনে।এদিকে 12ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সংক্রমণ বাড়ছে কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনাতেও। গত ২৪ ঘণ্টায় কলকাতা থেকে ৬৪৮টি নতুন কেস পাওয়া যাওয়ায় শহরে মোট কেস বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২,৬৮২। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫৩জন্য সুস্থ হয়ে উঠেছেন । তাই এখন সুস্থ হওয়ার সংখ্যা মোট ৬৯৬৬জন। বর্তমানে কলকাতায় করনা আক্রান্ত সক্রিয় চিকিত্‍সাধীন রয়েছেন ৫১৫৫জন। এদিকে করোনা আক্রান্ত হয়ে কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় ১২জনের মৃত্যু হয়েছে। তাই এখনও পর্যন্ত কলকাতায় মোট ৫৬১জন মারা গেছে করোনা আক্রান্ত হয়ে। উত্তর ২৪ পরগনায় গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫৪ জন। এদিকে বাকি মৃতদের মধ্যে একজন আলিপুরদুয়ার, একজন দক্ষিণ দিনাজপুর, দুজন পশ্চিম মেদিনীপুর, একজন হাওরা, চারজন হুগলি, চারজন উত্তর ২৪ পরগনা ও দুজন দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসিন্দা।এদিনের বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় 12ে ১৩হাজার ৪৬৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এই পর্যন্ত 12ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৬লাখ ৮৯হাজার ৮১৩টি। এখন 12ে ৫৪টি ল্যাবরেটরীতে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত এই পরিস্থিতি তে 12ে এখন ৫৮২টি সরকারি একান্তবাস রয়েছেন ৩হাজার ৮০৬জন। সরকারি একান্তবাস থেকে ছুটি পেয়েছেন, ১লাখ ৩হাজার ৩১৫জন। এখন বাড়িতে একান্তবাসে রয়েছেন ২৯হাজার ৬০৩জন। হোম কোয়ারেন্টিনে নজর দারি শেষ হয়েছে, ৩লাখ ৪৩হাজার ৫০২ জন। এদিকে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য সারা 12 জুড়ে ২৩টি ইনস্টিটিউশনাল কোয়ারেন্টিন বানানো হয়েছে। যেখানে রয়েছেন, ১৪০জন। এখান থেকে ছাড়া পেয়েছেন ২ লাখ ৭৬হাজার ১৩৪জন। নতুন করে 12ে শুরু হয়েছে 'সেফ হোম' - এ রাখার প্রক্রিয়া। 12ে ১০৬টি সেফ হোমে ৬ হাজার ৯০৮টি শয্যা রয়েছে। সেখানে রয়েছেন ৫৫৮জন সামান্য উপসর্গ যুক্ত ব্যক্তি।