অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করে দেখলেন চাঁচল মহকুমা শাসক।

আজবাংলা হরিশ্চন্দ্রপুর, অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে নিম্নমানের খাবার দেওয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে এদিন অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করে দেখলেন চাঁচল মহকুমা শাসক। সোমবার চাঁচল মহকুমাশাসক সব্যসাচী রায় নেতৃত্বে হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের বিডিও ও সিডিপিও কে সঙ্গে নিয়ে হরিশ্চন্দ্রপুর এর এক নম্বর ব্লকের ছটি অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র পরিদর্শন করে দেখেন। পাশাপাশি ওই কেন্দ্রের এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথেও তিনি কথা বলেন। একদিন ওই অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র গুলি পরিদর্শন করার পর মহকুমাশাসক সব্যসাচী রায় বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে দিন কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করতে এসেছিল বিডিও লোকের সঙ্গে করে। যাবতীয় তথ্য জেলাশাসক কে জানানো হবে।এদিন অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র গুলি পরিদর্শনে আসা মহকুমা শাসক কাছে বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন গ্রামবাসীরা।
উল্লেখ্য,দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের অধীনে থাকা ৬টি আইসিডিএস সেন্টার যার মধ্যে উত্তরপিপলা, মধ্যপাড়া, প্রান্তিক সংঘ, কাওয়ামারী ২, কাওয়ামারি ওরাওপাড়া ও গাঙ্গর১ এই কেন্দ্র গুলিতে অতি নিম্নমানের খাবার অভিযোগ তুলে এলাকার বাসিন্দা থেকে শুরু করে কেন্দ্রে র পড়ুয়ার অভিভাবকরা।অভিভাবকদের আরও অভিযোগ, তালিকা অনুযায়ী কেন্দ্র গুলিতে খাবার প্রদান করা হচ্ছে না। পোকা ধরা চাল, কোনও কোনও দিন সবজি ছড়ায় খাবার প্রদান করা হয়। গোটা ডিমের পরিবর্তে অর্ধেক ডিম দেওয়া হয়। সাত দিনে মাত্র তিন দিন সেন্টার গুলি খোলা হয় বাকি দিন গুলি বন্ধ। পঠন পাঠান মাথায় উঠেছে। এই নিয়ে সেন্টার ইনচার্জ দের অভিযোগ জানাতে গেলে উল্টো অভিভাবকদের শাসিয়ে তাড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ। এনিয়ে গত মঙ্গবার হরিশচন্দ্র পুর ১ ব্লকের আধিকারিকের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন কলম পাড়া এলাকার এক বাসিন্দা আসিস দাস। এই অভিযোগের ভিত্তিতে দিনগুলি পরিদর্শনে যান প্রশাসনের আধিকারিকেরা।