ই-কমার্স দুনিয়ার বেতাজ বাদশা চিনের কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য জ্যাক মা

Jack Ma
জ্যাক মা

আজবাংলা  জ্যাক মা ১৯৬৪ সালে পশ্চিম চীনের হোয়াং ঝু প্রদেশে জন্মগ্রহণ করেন। তিন সন্তানের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। তাঁর এক বড়ভাই এবং ছোট বোন ছিল। তাঁর পরিবারের আর্থিক অবস্থা খুব ভাল ছিল না। মা এর বাবা-মা গান গেয়ে বেড়াতেন। মা এর দাদা ছিলেন চীনের জাতীয়তাবাদী দলের একজন স্থানীয় অফিসার। চেয়ারম্যান মাও জাতীয়তাবাদী দলকে হারিয়ে দেবার পরে মা এর দাদাকে কম্যুনিস্ট পার্টির শত্রু হিসেবে চিহ্নিত করা হয় এবং মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। সোমবার ‘পিপলস ডেইলি’-তে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে দেশের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে এমন ১০০ জন দলীয় সদস্যের নাম প্রকাশ করা হয়। তাতে সামিল ছিল আলিবাবা কর্ণধারের নামও। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে জ্যাক মা-র। দলের মুখপত্র ‘পিপলস ডেইলি’-র তরফে সোমবার তা নিশ্চিত করা হল কোটি কোটি টাকার মালিক ই-কমার্স দুনিয়ার বেতাজ বাদশা আলিবাবা কর্ণধার জ্যাক মা চিনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য  ১৯৭৮ সালের ডিসেম্বর মাসে চিনে অর্থনৈতিক সংস্কার শুরু হয়। যার আওতায় পুঁজিপতিদের দাবিয়ে রাখার চিরাচরিত কমিউনিস্ট ধ্যান ধারণা ছেড়ে বেরিয়ে আসার সঙ্কল্প নেওয়া হয়। তার পরিবর্তে স্থির হয়, বেসরকারি সংস্থাগুলিকে নিয়ে উন্নয়নের পথ প্রশস্ত করা। এ বছর তার ৪০ বছর পূর্তি। সেই উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বেজিং। তাতে দেশের উন্নয়নে যোগদান করেছেন এমন ১০০ জনকে সম্মান জানানো হবে। সেই তালিকায় নাম রয়েছে জ্যাক মা-র। সম্মান জানানো হবে ‘টেনসেন্ট হোল্ডিংস লিমিডেট’-এর সিইও পোনি মা,  ‘বৈদু আইএনসি’-র সিইও রবিন লি, বাস্কেটবল তারকা ইয়াও মিঙ এবং ভলিবল কোচ লাঙ পিঙকেও। ৩৮৪০ কোটি মার্কিন ডলারের মালিক জ্যাক মা চিনের সবচেয়ে ধনী মানুষ। ই-কমার্সের বাইরেও নানা ক্ষেত্রে রীতিমতো পসার জমিয়ে ফেলেছে তাঁর সংস্থা আলিবাবা। চলতি বছরে শেয়ার বাজারে ধ্বস নামলেও, সংস্থার উপর তার বিশেষ প্রভাব পড়েনি। এই মুহূর্তে তাদের মোট সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ৪০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার। পৃথিবীর সেরা ১০ সংস্থার মধ্যে অন্যতম সেটি। কোটিপতি ব্যবসায়ী রা এখন চিনে কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য।