কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন হুমায়ুন কবীর।

join the Congress and join the BJP.
বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন হুমায়ুন কবীর।

আজবাংলা ১৯৮২ সাল থেকে রাজনীতিতে আছেন বেলডাঙা ২ নম্বর ব্লকের শক্তিপুরের হুমায়ুন কবীর। ৩০ বছর ধরে কংগ্রেস করছেন তিনি। ২০১১ সালে রেজিনগর বিধানসভা থেকে কংগ্রেস বিধায়ক নির্বাচিত হন হুমায়ুন। এরপর কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়ে ২০১২ সালে তৃণমূলের মন্ত্রী হন। মাত্র ৬ মাস মন্ত্রী থাকার পর উপনির্বাচনে রেজিনগরে পরাজিত হন হুমায়ুন। এর পরই তৃণমূলের সঙ্গে তাঁর দূরত্ব বাড়তে থাকে।

এই ধরনের আরো খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পাতায় লাইক করুন facebook

দলবিরোধী কার্যকলাপের জন্য তাঁকে শোকজ করে শাসক দল। ফের কংগ্রেসে ফিরে আসেন তিনি। এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে জেলা পরিষদের কংগ্রেস প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়ান। কিন্তু ভোটের দিন সকালেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেন হুমায়ুন কবীর। কংগ্রেস এখন দুর্বল হয়ে পড়েছে। রাজ্যে এত মার খাচ্ছে দল, কিন্তু দলের হাইকমান্ডের কোনও প্রতিক্রিয়া নেই । এই কংগ্রেসের সঙ্গে থাকা যায় না।” শুক্রবার কংগ্রেস জেলা সহ-সভাপতি পদ থেকে পদত্যাগ করবেন তিনি। তারপর কিছুদিনের মধ্যেই বিজেপিতে যোগ দেবেন। এ প্রসঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি বলেন, “কে কোন দলে যাবেন, সেটা তাঁর নিজস্ব ব্যাপার। তবে হুমায়ুন কবীরকে হারানোর জন্য তৃণমূল সবরকম চেষ্টা করেছে।হুমায়ুন কবীর জানান, পুলিশ ও শাসক দলের গুন্ডামিতে তাঁর অধীনস্থ পঞ্চায়েতগুলিতে কংগ্রেস প্রার্থী ও কর্মীরা লাঞ্ছিত হয়েছেন। শাসকদল তাঁদের ভোট করতে দেয়নি। সে কারণে ভোটের দিন তিনি সরে দাঁড়িয়েছিলেন। শাসক দলের হার্মাদ বাহিনীদের সঙ্গে নিয়ে পুলিশ ভোটারদের ভয় দেখাচ্ছে l যে রক্ষক সেই ভক্ষকে পরিণত হয়েছে আমরা কাদের কাছে অভিযোগ করবো ? পুলিশ ভোট লুঠ করে নিলো বলে অভিযোগ হুমায়ুন কবিরের l