কল্যাণীতে রাতের অন্ধকারে পার্শ্বশিক্ষকদের উপর নিশংস ভাবে পুলিশের লাঠি চার্জ

মলয় দে আজবাংলা কল্যাণী আজ কল্যাণীতে অনশনরত পার্শ্বশিক্ষকদের উপর নিশংস ভাবে পুলিশের লাঠি চার্জ প্রশাসন ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ সব মহলে। পার্শ্ব শিক্ষকদের অভিযোগ, শিক্ষিকাদের শ্লীলতাহানি করতেও ছাড়েনি পুলিশ। টেনে ব্লাউজ ছিঁড়ে দেওয়া হয়েছে। পার্শ্ব শিক্ষকের মর্যাদা দান এবং কর্মরত অবস্থায় মৃত পার্শ্বশিক্ষকের পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা ও পোষ্যকে চাকুরি দান এই দুই দফা দাবি নিয়েগত ১৬ ই আগস্ট বিকাশ ভবনের সামনে লাগাতার অবস্থান বিক্ষোভ এর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পার্শ্ব শিক্ষক ঐক্য মঞ্চ। প্রবল বৃষ্টির মধ্যেকলকাতা পুলিশ মহিলাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা এবং লাঠিচার্জ করার অভিযোগ তোলেন পার্শ্ব শিক্ষক ঐক্য মঞ্চ র সদস্য। এমনকি বাড়ি ফেরার সময় শিয়ালদা স্টেশনে কলকাতা পুলিশ প্রত্যেককে খুঁজে তাড়া করে নিয়ে বেড়ায়। সারারাত জেগে এখানে ওখানে রাত কাটান তাঁরা। সকালে সকলের সমবেত সিদ্ধান্ত অনুযায়ীকল্যাণী বাস টার্মিনালে অবস্থান বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে গেলে সেখানেও পুলিশি হয়রানি হতে হয় তাদের। বেলা বারোটা থেকে ৫০জন শিক্ষক শিক্ষিকা ৭ ঘণ্টা ধরে অনশন চালানোর সময় পুনরায় আক্রান্ত হতে হয় তাদের।মহিলা পুলিশ না থাকা সত্ত্বেও শিক্ষিকাদের ব্লাউজ ছিড়ে ,দেওয়া জাতীয় পতাকা হাতে সংগীত গীতরত অবস্থায় লাঠিচার্জ করে হয় তাদের উপর এমনটাই অভিযোগ করেন ঐক্য মঞ্চের আহ্বায়ক জগন্নাথ ঘোষ। ১০০জন পার্শ্ব শিক্ষক আহত হয়ে বাড়ি চলে যান দুজন হাসপাতালে ভর্তি, কিছু শিক্ষক শিক্ষিকা গ্রেফতার হলেও কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তাদের ছেড়ে দেয়া হয় বলে জানান সংগঠনের পক্ষ থেকে। আগামী সোমবার ক্লাস বয়কটের ডাক দিয়েছেন তারা।সমগ্র বিষয়টি সম্পর্কে পুলিশের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান আগাম কোনো অনুমতি না নিয়ে জমায়েত করার অভিযোগে প্রথমে বার বার অনুরোধ করেও কাজ না হওয়ায় বাধ্য হয়ে লাঠি চালানোর সিদ্ধান্ত। তবে বেশ কিছু তথ্য বাড়িয়ে বলা হয়েছে ।