জেনে নিন তারকেশ্বর মন্দিরের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস আর মন্দির সম্পর্কে নানা জনশ্রুতি

জেনে নিন তারকেশ্বর মন্দিরের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস আর মন্দির সম্পর্কে নানা জনশ্রুতি

আজবাংলা       শ্রাবন মাস মানেই যেখানে ছুটে যায় লক্ষ লক্ষ মানুষ | অবশ্য শুধু শ্রাবন মাসই নয় সারা বছরই ভক্তের আনাগোনা লেগেই থাকে | হাজার হাজার মানুষ শিবরাত্রিতে ও শ্রাবণ মাসে হাজির হন তারকেশ্বরে শিবলিঙ্গে অর্থাৎ মহাদেবের মাথায় জল ঢালতে | 

নিজের ও পরিবারের মঙ্গল কামনায় মানুষ তারকেশ্বরে বাবার মন্দিরে গিয়ে উপস্থিত হন | হাজার হাজার মানুষ হত্যে দিয়ে মন্দিরের সামনে নাট মন্দিরে পড়ে থাকেন ফলের আসায় |  সারা বছরই হাজার হাজার মানুষের আনাগোনা তা লেগেই থাকে তারকেশ্বরে | 

এবার জেনে নেওয়া যাক কিভাবে তারকেশ্বর মন্দির হয়ে উঠল তীর্থক্ষেত্র | শোনা যায়, তারকেশ্বর মন্দিরের প্রতিষ্ঠাতা হলেন উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা বিষ্ণুদাস নামের এক শিবভক্ত | তিনি গড়ে তুলেছিলেন মহাদেবের এই মন্দির | 

তারকেশ্বর শিবের মন্দির এই শহরের প্রধান পর্যটক আকর্ষণ | ১৭২৯ সালে নির্মিত এই মন্দিরটি একটি আটচালা মন্দির | মন্দিরের সামনে একটি নাটমন্দির অবস্থিত | অদূরেই কালী ও লক্ষ্মী-নারায়ণের দুটি মন্দির রয়েছে | মন্দিরের উত্তরে অবস্থিত পুকুরটির নাম দুধপুকুর | লোকবিশ্বাস অনুযায়ী, এই পুকুরে স্নান করলে মনস্কামনা পূর্ণ হয় | 

অন্যদিকে লোকমুখে শোনা যায়, মন্দিরের প্রতিষ্ঠাতা বিষ্ণুদাসের ভাই দেখেন স্থানীয় জঙ্গলে একটি কালো পাথরের ওপর গরুরা নিয়মিত দুধ দান করে আসে | এই ঘটনার কথা সে নিজের দাদা বিষ্ণুদাসকে জানায় | 

আর এরপরই স্বপ্নাদেশে ওই পাথরটিকে শিবজ্ঞানে পুজো শুরু করেন বিষ্ণুদাস | তারপরেই সে গড়ে তোলে শিব মন্দির |  শিবের তারকেশ্বর রূপ অনুসারে এই মন্দিরের নামকরণ করা হয় | সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বহুবার মেরামত আর পুনর্নির্মাণ করা হয়েছে মহাদেবের এই মন্দির | 

এরপর  ১৭২৯ সালে মল্ল রাজারা মন্দিরটির নতুন করে সংস্কার করেন | তৈরি হয় একটি আটচালা মন্দির | বর্তমানে মন্দিরটিকে যে ভাবে আমরা দেখি, তা মল্লরাজাদেরই তৈরি | 

বাবার মন্দিরের উত্তরে অবস্থিত পুকুরটির নাম দুধপুকুর | লোকবিশ্বাস অনুযায়ী, এই পুকুরে স্নান করলে মনস্কামনা পূর্ণ হয় | এখনও হাজার হাজার মহিলা সন্তান কামনায় বা সন্তানের মঙ্গল কামনায় তারকেশ্বর মন্দিরে ছুটে আসেন | সকলে এই দুধ পুকুরে স্নান করে জল ঢালতে মন্দিরে প্রবেশ করেন | 

অন্যদিকে আষাঢ় মাসের তৃতীয় সপ্তাহ থেকেই তারকেশ্বরে শুরু হয়ে যায় শ্রাবণী মেলার প্রস্তুতি | মেলা উপলক্ষে লক্ষ লক্ষ ভক্তের সমাগম হয় তারকেশ্বর মন্দিরে | তবে এই বছর করোনা ভাইরাসের কারণে  শ্রাবনী মেলাও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন | সবমিলিয়ে এবার তারকেশ্বর মন্দির চত্বর একেবারে ফাঁকাই ছিল মন্দির চত্বর |