বুলবুলের দাপটে কলকাতা শুরু হয়ে গিয়েছে দুর্যোগ।বালিগঞ্জে গাছ পড়ে এক যুবকের মৃত্যু

বুলবুল
বুলবুল

আজবাংলা উপকূলের জেলাগুলিতে জারি হয়েছে চরম সতর্কতা। প্রায় ৮৪ হাজার মানুষকে সরিয়ে নেওয়া যাওয়া হয়েছে নিরাপদ স্থানে। কলকাতা সহ পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, দুই চব্বিশ পরগনায় শনিবার সকাল থেকেই চলছে নাগাড়ে বর্ষণ। সঙ্গে ৭০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে বইছে ঝোড়ো হাওয়া। বন্ধ রয়েছে কলকাতা-হাওড়া ফেরি পরিষেবা। হাওড়া-বাবুঘাট, বাগবাজার, আহিরীটোলা ছাড়াও পশ্চিম মেদিনীপুর এবং হুগলি জেলাতেও বন্ধ রয়েছে ফেরিঘাট। কড়া নজরদারি চলছে দিঘা, মন্দারমনি এবং তাজপুরে। ইতিমধ্যেই বালিগঞ্জে গাছ পড়ে এক যুবকের মৃত্যুর খবর মিলেছে। মৃত ২৫ বছরের সোহেল শেখ। জানা গিয়েছে, বালিগঞ্জে একটি ক্লাবে রান্নার কাজ করতেন শেখ সোহেল। আদতে বিহারের বাসিন্দা। এখানে ট্যাংরায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে ছিলেন তিনি।

কাজে যোগ দিতে দুপুরে ক্লাবে পৌঁছন তিনি। সেইসময় ক্লাবে ঢোকার সময়ই বিপত্তি ঘটে। ক্লাব চত্বরে থাকা একটি গাছ ভেঙে পড়ে তাঁর উপর। মাথায় গভীর চোট পান তিনি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় শেখ সোহেলের। আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, সমুদ্রে বুলবুলের গতিবেগ বেশি থাকলেও, স্থলভাগে আছড়ে পড়ার সময় তার গতি কমবে। কিন্তু যে ভাবে শক্তিশালী হয়ে উঠেছে বুলবুল, তাতে মনে করা হয়েছে স্থলভাগে আছড়ে পড়লেও, গতি হবে ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। শেষ মুহূর্তে যদি শক্তি বৃদ্ধি পায়, তা হলে ১৩৫ কিলোমিটার গতিতেও তা পৌঁছে যেতে পারে।আজ সন্ধ্যার পরই উপকূলে আছড়ে পড়বে বুলবুল। ৮ থেকে ১১টার মধ্যে আছড়ে পড়তে চলেছে বুলবুল। শক্তি বাড়িয়ে ইতিমধ্যেই অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে বুলবুল।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!