কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীরকে গুরুত্ত না দিয়ে ইংরেজবাজার পুরসভায় তৃণমূলের ভরসা নীহার রঞ্জন ঘোষই

আজবাংলা মালদা  ইংরেজবাজার পুরসভার তৃণমূল কংগ্রেসের ২৪জন কাউন্সিলরদের তলব করেন মৌসম বেনজির নুর । দুপু  ১২টায় উপস্থিত হন মাত্র ১৪জন কাউন্সিলর। গরহাজির ছিলেন কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীর অনুগামী ১০ কাউন্সিলর। দুপুর ১টা নাগাদ উপস্থিত ১৪জন তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠক শুরু হয় তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা পর্যবেক্ষক গোলাম রব্বানি ও জেলা সভানেত্রী মৌসম বেনজির নুরের।উল্লেখ্য ১৫জন তৃণমূল কংগ্রেসের বিক্ষুদ্ধ কাউন্সিলরা ইংরেজবাজার পুরসভার পুরপতি নীহার রঞ্জন ঘোষের বিরুদ্ধে আনে অনাস্থা। শনিবার তৃণমূলের মালদহ জেলা সভাপতি মৌসুম নুরের ডাকা বৈঠকে হাজির হলেন না অন্তত দশ জন কাউন্সিলর। সেই তালিকায় ছিলেন প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুও। এ দিন এই বৈঠকে মৌসমের সঙ্গে ছিলেন দলের জেলা পর্যবেক্ষক গোলাম রব্বানিও। দলীয় সূত্রের খবর, দু’ঘণ্টার বৈঠকের পর বিকেল নাগাদ কৃষ্ণেন্দুর মান ভাঙাতে কালীতলায় তাঁর ব্যক্তিগত কার্যালয়ে যান রব্বানি ও মৌসম। কৃষ্ণেন্দুর ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গিয়েছে, বৈঠকের আগেই কৃষ্ণেন্দু এ দিন রব্বানিকে নিজের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজে ডাকেন। তবে দু’জনে তাঁর কালীতলার অফিসে যান। সেখানেই ঘণ্টাদেড়েক কথা হয় তিনজনের। গত ২ সেপ্টেম্বর পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম দু'পক্ষের দলীয় কাউন্সিলরদের কলকাতায় ডেকে বৈঠক করেন। কিন্তু তারপরেও সমস্যা না মেটায় গত বৃহস্পতিবার ফের দলের জেলা সভাপতি সহ পাঁচ জন কাউন্সিলরকে ডেকে কলকাতায় বৈঠক করেন পুরমন্ত্রী। দলীয় সূত্রে খবর, সেই বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানাতেই এ দিন দুপুরে দলের জেলা কার্যালয় নুর ম্যানসনে ইংরেজবাজার পুরসভার দলীয় ২৪ জন কাউন্সিলরকে বৈঠক ডাকেন মৌসম। কিন্তু যাননি  অন্তত দশজন কাউন্সিলর। চার নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অশোক সাহা বৈঠকে থাকলেও তিনি বৈঠকের হাজিরা খাতায়  স্বাক্ষর করেননি।বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দুই নেতৃত্ব জানান তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলরদের তোলা অভিযোগের তদন্ত হবে। গড়া হবে তদন্ত কমিটি। পুরপতি নীহার রঞ্জন ঘোষই অব্যহত থাকবে।