ফের বাচ্চা বদলের অভিযোগ মালদা মেডিকেলে৷

মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল
মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল

দেবু সিংহ আজবাংলা মালদা,  ফের বাচ্চা বদলের অভিযোগ মালদা মেডিকেলে৷ যদিও বাড়ির লোকজনের চাপে নিজেদের বাচ্চা ফেরত পেয়েছেন বাবা-মা৷ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মেডিকেল চত্বরে৷
ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রাতে৷ প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে গতকাল রাতে মালদা মেডিকেলে নিয়ে আসা হচ্ছিল ইংরেজবাজারের নরহাট্টা অঞ্চলের লক্ষ্মীঘাটের গৃহবধূ সাগরি বসাককে৷ তাঁর স্বামী স্বরূপ মণ্ডল পেশায় শ্রমিক৷ দুর্ভাগ্যবশত অ্যাম্বুলেন্সেই সন্তান প্রসব করেন সাগরিদেবী৷ সেই সময় অ্যাম্বুলেন্সে থাকা তাঁর স্বামী সদ্যোজাতের ছবি নিজের মোবাইল ফোনে তুলে রাখেন৷ অ্যাম্বুলেন্স মালদা মেডিকেলে পৌঁছোলে প্রসুতি বিভাগের নার্সরা সদ্যোজাত ওই পুত্রসন্তানকে পরিষ্কার করার জন্য নিজেদের হেপাজতে নেন৷ স্বরূপের অভিযোগ, রাত ১২টা নাগাদ নার্সরা এসে তাঁদের জানান, বাচ্চার পরিস্থিতি ভালো নেই৷ সেই সময় নার্সরা বেশ কয়েকটি কাগজে তাঁর স্বাক্ষর করিয়ে নেন৷ খানিক বাদে নার্সরা একটি মৃত পুত্রসন্তান তাঁদের হাতে তুলে দেন৷ মৃত সন্তান দেখে তাঁরা কান্নাকাটি শুরু করেন৷ তখনই তাঁর মায়ের সন্দেহ হয়, বাচ্চাটি তাঁর স্ত্রীর নয়৷ মা তাঁকে মোবাইল ফোনে তোলা ছবির সঙ্গে বাচ্চাটিকে মিলিয়ে দেখতে বলেন৷ বাচ্চার ছবি মিলিয়ে দেখে তিনিও নিশ্চিত হন, মৃত বাচ্চা তাঁদের নয়৷ এনিয়ে তাঁরা শোরগোল শুরু করেন৷ ঝামেলার খবর পেয়ে পুলিশও ছুটে আসে৷ এরপরেই নার্সরা স্বীকার করে নেন, মৃত বাচ্চা তাঁদের নয়৷ তাঁরা তাঁর স্ত্রীর প্রসব করা পুত্রসন্তান তাঁদের হাতে তুলে দেন৷ কীভাবে নার্সদের এমন ভুল হল তা তাঁর জানা নেই৷ তবে এমন ঘটনা যাতে আর না ঘটে তার জন্য তাঁরা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে উপযুক্ত তদন্তের দাবি জানাচ্ছেন৷