ভারত সেরা “কৃষি কর্মণ” পুরস্কার পাচ্ছেন মালদার মহিলা কৃষক হালিমা বিবি

মালদার মহিলা কৃষক হালিমা বিবি
মালদার মহিলা কৃষক হালিমা বিবি

দেবু সিংহ আজবাংলা মালদাঃ মাত্র ১০ বিঘা জমি তার মধ্যে ৫ বিঘা জমিতে আধুনিক পদ্ধতিতে ভুট্টা চাষ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন ইংরেজবাজার ব্লকের লক্ষীঘাট গ্রামের বাসিন্দা হালিমা বিবি। আধুনিক পদ্ধতিতে ভুট্টা চাষ করেই তার মুকুটে জুড়তে চলেছে নতুন পালক। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিবছর বিভিন্ন ফসল চাষের ওপর “কৃষি কর্মণ” পুরষ্কার প্রদান করা হয়। আর এই পুরস্কার এবার পেতে চলেছেন মালদার হালিমা বিবি। ভারতবর্ষের প্রথম মহিলা চাষী হিসেবে তিনি এই সম্মান পাচ্ছেন বলে জানা গেছে। খুশির হাওয়া বইছে মালদা জেলা কৃষি দপ্তরে। গত ৫ বছর ধরে হালিমা আধুনিক পদ্ধতিতে ভুট্টা চাষ করেই এই সাফল্য পেয়েছেন পাশাপাশি ২০১৭-১৮ আর্থিক বছরে ভুট্টা চাষে প্রথম স্থান অধিকার করেছে পশ্চিমবঙ্গ।

গত পাঁচ বছরে ডাল চাষ করে টানা পাঁচবার সেরার সম্মান জুটেছিল পশ্চিমবঙ্গের। এবার ভুট্টা চাষে নজির গড়ে প্রথম হয়েছে বাংলা।আর ভারতবর্ষের মহিলা চাষি হিসেবে হালিমা বিবির নির্বাচন এই দুই মিলিয়ে খুশির হাওয়া বইছে কৃষি দপ্তরে। মূলত উত্তরবঙ্গের ভুট্টা চাষের উপর নির্ভর করেই সেরা নির্বাচিত হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ।হালিমা বিবির পুরষ্কার পাওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন জেলা কৃষি দপ্তর।এক মহিলা কৃষক হিসেবে দেশের সেরা পুরষ্কার পেতে চলায় খুশি জেলা ও ব্লক কৃষি দপ্তরের আধিকারিকরা।পুরস্কারের জন্য নাম নির্বাচিত হওয়ায় খুশি হালিমা বিবি ও তার পরিবারবর্গ।ইতিমধ্যেই মালদা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে হালিমা বিবিকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে পুরস্কার বিতরণের দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। তাই পুরস্কার হাতে পাওয়ার আশায় প্রহর গুনছেন হালিমা বিবি। কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গেছে ইংরেজি বাজার ব্লকের লক্ষীঘাট গ্রামের বাসিন্দা জাকির হোসেন। তিনি কৃষি কাজের সাথে সাথে ছোট ব্যবসায়ীও। সেখানে তাদের মোট ১০বিঘা জমি রয়েছে। তারমধ্যে ৫ বিঘা জমি চা চাষ করেন হালিমা বিবি। সেই পাঁচ বিঘা জমিতে কৃষি দপ্তরের আধিকারিকদের পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ ও উৎসাহের উপর নির্ভর করে পাঁচ বছর ধরে ভুট্টা চাষ করে চলেছেন হালিমা। তিনি বলেন আধুনিক পদ্ধতিতে ভুট্টা চাষ করে প্রচুর ফলন বেড়েছে। তাই কৃষি দপ্তর এর পক্ষ থেকে আমার নাম মনোনীত হয়েছিল। শুধু তাই নয় জেলার ১৫টি ব্লকের একজন করে ভুট্টা চাষীদের নাম বাছাই করা হয়েছিল। সেখানে প্রথম হয় মালদার এই মহিলা চাষী। হালিমা বিবি আরো জানান,কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে আমাকে ভুট্টা চাষের জন্য পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। আমি খুব খুশি হয়েছি।এই সম্মান আমাকে আগামী দিনে ভুট্টা চাষে আরো উৎসাহ বাড়াবে। অন্যান্য কৃষকদের আমি ভুট্টা চাষের পরামর্শ দেব। মালদা জেলা কৃষি দপ্তর গত পাঁচ বছর ধরে দিতে আধুনিক পদ্ধতিতে ভুট্টা চাষ করার প্রশিক্ষণ দিয়ে চলেছেন। সুফল মিলছে। বিনা কর্ষণ পদ্ধতিতে চাষের বিশেষ প্রশিক্ষণ দিচ্ছে কৃষি দপ্তর। ইংরেজবাজার ব্লকের সহ কৃষি অধিকর্তা সেফাউর রহমান জানান, কৃষকদের আমরা নিয়মিত সাহায্য করছি। ভুট্টা চাষে এবার মহিলা কৃষক হিসাবে “কৃষি কর্মণ” পুরস্কার পাচ্ছেন হালিমা বিবি। এটা গর্বের বিষয়। আমরা চাই আগামী দিনে হালিমাকে অনুসরণ করে আধুনিক পদ্ধতিতে ভুট্টা চাষ করুক মালদার কৃষকেরা।সুফল মিলবেই।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!