আলুর তরকারি খেতে আপত্তি, স্বামীকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠাল স্ত্রী

আলুর তরকারি খেতে আপত্তি, স্বামীকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠাল স্ত্রী

আজ বাংলা     স্ত্রী সাধ করে আলুর তরকারি রেঁধেছিলেন। কিন্তু স্বামীর তা পছন্দ না। তিনি যে আবার ডায়াবেটিসের রোগী। আলু খাওয়া ডাক্তারের বারণ। সে কথাই বলেছিলেন স্ত্রী-কে। তা শুনেই রণচণ্ডি মূর্তি ধারণ করেন স্ত্রী। জামা-কাপড় সাফাইয়ের ব্যাট এনে স্বামীকে বেধড়ক মার মারতে থাকেন। শেষপর্যন্ত কাঁধের হাড় ভেঙে হাসপাতালে ভরতি স্বামী। স্ত্রীয়ের নামে থানায় অভিযোগও ঠুকেছেন তিনি। আহমেদাবাদের এই ঘটনায় হতবাক পুলিশ কর্মীরাও।

আমদাবাদের ভাসনা এলাকার সরাইনগরের বাসিন্দা ৪০ বছরের হর্ষদ গোহেল। তাঁর চারটি কন্যা আছে। স্ত্রী আর গোহেলের  দাম্পত্য কলহ লেগেই থাকে। শুক্রবার রাতে হর্ষ তারাকে জিজ্ঞেস করেন, কী রান্না হয়েছে? তিনি জানান, তিনি আলুর তরকারি রান্না করেছেন। আর সঙ্গে আছে রুটি। আর এতেই গোল বাধে।

FIR-এ হর্ষদ জানিয়েছেন, "আমি তখনই মানতে চাইনি। তারাকে জিজ্ঞেস করি আমার শরীরের জন্য আলু ভাল নয় জেনেও কেন ও আলুর তরকারি রান্না করল। এই কথা শুনে আমার স্ত্রী রেগে যায়। এরপরই ও আমায় হেনস্তা করতে শুরু করে।" জানা গিয়েছে, বাদানুবাদ চলাকালীন শৌচাগার থেকে জামা-কাপড় ধোওয়ার ব্যাট নিয়ে এসে হর্ষকে এলোপাথারি মারধর করেন তারা। নিজেকে বাঁচাতে চিৎকার করতে শুরু করেন হর্ষদ। শেষপর্যন্ত প্রতিবেশিরা তাঁকে বউয়ের হাত থেকে উদ্ধার করে।

গুরুতর জখম অবস্থায় এলিসব্রিজ এলাকায় ভিএস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় হর্ষদকে। তাঁর ডান কাঁধের হাড় ভেঙেছে। ভিএস হাসপাতালে একটি মেডিকো লিগ্যাল কেস ফাইল করা হয়েছে। পরে ভাসনা পুলিশ মারধর করা ও স্বামীকে হেনস্থা করার অভিযোগে তারার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। শুরু হয়েছে তদন্ত।