ত্রিপুরায় বন্ধন ব্যাঙ্কের ম্যানেজার খুনে জড়িত অভিযুক্তরা এখনও পলাতক।

বন্ধন ব্যাঙ্ক
বন্ধন ব্যাঙ্ক

আজবাংলা আগরতলা  মঙ্গলবার রাতে বন্ধন ব্যাঙ্কের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার জয়দেব সাহা গোলাঘাটি থেকে তাঁর সহকর্মী খোকন নোয়াতিয়া, সিন্টু দাস, সুরজিত্‍ দে সেন, অভিজিত্‍ দাস ও সুবল রুদ্রপালকে নিয়ে আরেক সহকর্মী রুসি দেববর্মার বাড়ি লাটিয়াছড়া ভুবনপাড়ায় গিয়েছিলেন। সেখানে আড্ডা এবং খাওয়া দাওয়া শেষে রাত্র ১০টা নাগাদ তাঁরা ভুবনবন থেকে বাইকে করে রওয়ানা দেন। তাঁরা ভুবনপাড়ায় আসতেই একদল দুষ্কৃতকারী তাঁদের পথ আটকায় এবং ব্যাঙ্কের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার জয়দেবকে একদিকে নিয়ে যায় এবং তারই আরও এক সহকর্মীকে অন্যদিকে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক পেটায়। শেষ পর্যন্ত এদের রাস্তায় ফেলেই দুষ্কৃতীরা গা ঢাকা দেয়। আহতদের বিশ্রামগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিন্তু তাঁদের অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে হাসপাতালের চিকিত্‍সক জিবি হাসপাতালে রেফার করে দেন আহতদের। জিবিতে চিকিত্‍সাধীন অবস্থায় বুধবার বন্ধন ব্যাঙ্কের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার জয়দেব সাহার মৃত্যু হয়। খুনের সঙ্গে জড়িত অভিযুক্তরা এখনও পলাতক। পুলিশ তাদের টিকির নাগালও পাচ্ছে না। তদন্তে পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন ব্যাঙ্কের ম্যানেজার জয়দেব সাহার বাবা খোকন সাহা। তিনি জানান, ঘটনার দিন তিনি তাঁর ছেলের মৃত্যুর জন্য দায়ী অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিশ্রামগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত পুলিশের তরফ থেকে কোনও ইতিবাচক উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান। এদিকে পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করে তদন্ত ও অভিযুক্তদের পাকড়াও করতে অভিযান চালানো হচ্ছে। অতিসত্বর খোকন সাহা খুনের ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে।