রোগা হতে চান? তাহলে কী কী ভাবে গাজর খাবেন জেনে নিন !

রোগা হতে চান? তাহলে কী কী ভাবে গাজর খাবেন জেনে নিন !
আজ বাংলা: গাজর... অত্যন্ত পুষ্টিকর এবং সুস্বাদু শীতকালীন সবজি হলেও বলতে গেলে সারাবছরই এটা মেলে। গাজরের উপকারিতা ও পুষ্টিগুনে আধিক্যতার কারণে গাজরকে বলা হয় সুপার ফুড। কাঁচা ও রান্না দুভাবেই খাওয়া যায় গাজর, তাই গাজরকে সবজি এবং ফল দুটাই বলা যায়। নানা প্রকার খাদ্য তৈরিতে গাজর ব্যবহৃত হয়, বিশেষ করে তরকারি, ভাঁজি, হালুয়া ও স্যালাড হিসেবে গাজর অত্যন্ত জনপ্রিয়। তবে আপনি কি জানেন যে দ্রুত ওজন কমানোর জন্য গাজর কতটা উপকারী। ফলে দ্রুত ওজন কমাতে সেই স্যালাডে বাড়িয়ে দিন গাজরের পরিমাণ। অনেকটা গাজর কুঁচিয়ে লেবুর রস ও গোলমরিচ ছড়িয়ে নিয়মিত খান। তবে স্বাদ বাড়াতে সালাদে মাখন, মেয়োনিজ বা তেল মেশাবেন না। গাজর সিদ্ধ করে তা দিয়ে স্যুপ বানিয়ে ফেলুন। হালকা গোলমরিচ, অল্প মাখন যোগ করে এই স্যুপ দিয়ে পেট ভরান দুপুরে বা রাতে। পেট ভরাতে এর সঙ্গে অন্য সবজিও যোগ করতে পারেন। সাধারণ উপায়ে যেভাবে গাজরের সুজি বা হালুয়া বানান, সে ভাবে না বানিয়ে বরং মাখন, চিনি, বাদাম ছাড়া হালুয়া বানান। চিনি ছাড়া হালুয়া খেতে অসুবিধা হলে লবণ ও মরিচ মেশানো ঝাল সুজির নিয়মেও বানিয়ে ফেলতে পারেন এই হালুয়া। তেলও দিন একেবারে নামমাত্র। গাজরের ভিটামিন ও মিনারেলস দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, এটি 1কলকাতাসুরক্ষা ও সৌন্দর্যচর্চায় বহুদিন থেকে সমাদৃত।