দলের তোলাবাজির টাকার দরকার নেই । মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য

Mamata Bandyopadhyay
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য

বিশ্বজিৎ সরকার,দার্জিলিংঃ ফের একবার জমি দখল ও মাফিয়ারাজ নিয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জমি মাফিয়ারাজে ভূমি দপ্তর ও পুলিশ কর্মীদের নাম জড়াচ্ছে এমনই মন্তব্য করেন তিনি।সবার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সাফ জানিয়ে দেন। বুধবার শিলিগুড়ির উত্তরকন্যায় আলিপুরদুয়ারের প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। সেই বৈঠক থেকেই জমি দখলের প্রসঙ্গ তোলেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে জমি দখল করছে কিছু মাফিয়া। এমনকি সরকারি জমি ও ব্যক্তিগত জমি দখল করছে। তারা মনে করছে সেই সব জমি তাদের ব্যক্তিগত জমি। এই সব একদম কিছুতেই বরদাস্ত করা হবে না। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর পাশাপাশি তিনি আরও বলেন যে দেখা গেছে “কিছু ক্ষেত্রে পুলিশ ও ভূমি দপ্তরের আধিকারিকরা এসবে যুক্ত হচ্ছেন। তাদের কাউকে ছাড়া হবে না।

এই ধরনের আরো খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পাতায় লাইক করুন

এরপর দার্জিলিং ও জলপাইগুড়িতে জমি দখলের অভিযোগ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দার্জিলিংএ এমন একটা কেস শুনেছি যে কতগুলো বেআইনি জায়গা এসডিএলআরও নিজে জড়িত তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পুলিশকে নির্দেশ দিচ্ছি,অ্যান্টি করাপশন ব্রাঞ্চকে সক্রিয় করে হাতেনাতে এসব ধরুন। যদি কোন আধিকারিকরা এসবে জড়িত থাকে তাহলে তাদের ছাড়া হবে না। এবং যারা এসব করছে তাদের বিরুদ্ধে সিভিল ও ক্রিমিনাল অফেন্সের নানা ধারায় মামলা করুন ও গ্রেপ্তার করুন। আবার অনেকেই ভাবেন যে দু’বছর কাজ করলাম আর এই সময়টা যত পারি সমকারি জমিগুলি অন্য কারও নামে নথিভুক্ত করে দিয়ে বদলি হয়ে চলে গেলাম। দেখবেন যে জমিটি কার? কিন্তু দুর্নীতি করে গেলে ঠিক খুঁজে বার করে শাস্তি দেওয়া হবে। ৩০ জুন অসমে ন্যাশনাল সিটিজেনশিপ রেজিস্টারের রিপোর্ট প্রকাশের পর অসম থেকে পশ্চিমবঙ্গের অনুপ্রবেশের হার বাড়তে পারে বলেও তাঁর আশঙ্কা। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, জমি মাফিয়াচক্রের সঙ্গে পুলিস ও ভূমিরাজস্ব দফতরের কিছু কর্মীর যোগ আছে। তাদের চিহ্নিত করে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্য সরকারের কাছে জমি মাফিয়াদের নিয়ে লাগাতার রিপোর্ট পৌঁছাচ্ছে। দলের তোলাবাজির টাকার দরকার নেই।