সীমান্ত পেরিয়ে কলকাতায় লুকিয়ে আনা ১৬ কেজির বেশি চোরাই সোনা সহ গ্রেফতার ৭

সোনা
সোনা

আজবাংলা মঙ্গলবার, সদর স্ট্রিট এলাকা থেকে চার জনকে গ্রেফতার করেছে কলকাতা পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স। তাদের কাছে মিলেছে ৬ কেজি ৩৩০ গ্রাম সোনা ও নগদ ৯৮ লক্ষ টাকা। বাংলাদেশ সীমান্ত পার করে সড়ক পথে ওই সোনা কলকাতায় আনা হয়েছিল। উদ্ধার হওয়া সোনার বাজারমূল্য প্রায় আড়াই কোটি টাকা। ধৃতদের মধ্যে দু’জন উলুবেড়িয়ার ও দু’জন নোদাখালির বাসিন্দা। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আরেকটিকে ঘটনায় মিজোরামের আইজল থেকে একটি প্রাইভেট গাড়ি করে চোরাই সোনা আসছিল কলকাতার দিকে। গাড়ির সিটের ভিতরে লুকোনো ছিল ৬০টি সোনার বাট। ওজনে ১০ কেজি। কিন্তু শেষ রক্ষা অবশ্য হল না। সোমবার ডিরেক্টরেট অব ইন্টেলিজেন্স রেভিনিউ (ডিআরআই)-এর অফিসারেরা উত্তর-পূর্ব ভারতের ফুলবাড়ি-ঘোষপুকুর বাইপাসে রোডে ওত পেতে ছিলেন। খবর ছিল, সোনা পাচার হচ্ছে। শিলিগুড়ি হয়ে সেই সোনা চলে যাবে কলকাতায়। শিলিগুড়িতে ঢোকার অনেক আগেই গাড়িটি আটক করে ফেলা হয়। উদ্ধার হওয়া সোনার আনুমানিক বাজার মূল্য ৩ কোটি ৮৭ লক্ষ টাকা। জানা গিয়েছে, মায়ানমার সীমান্ত হয়ে এই চোরাই সোনা ঢুকেছিল মিজোরামে। তার পর আইজল থেকে কলকাতার দিকে রওনা দেয়। ধৃতরা হল জমুয়ানকিমা, রুয়ালসাঙ্গপুইয়া এবং লালনিহালাইয়া। তিন জনেই আইজলের বাসিন্দা।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!