মালদায় কংগ্রেস ত্যাগ করে তৃণমূলে যোগদান করলেন প্রায় দুই শতাধিক মহিলা ও পুরুষ

মালদায় কংগ্রেস ত্যাগ করে তৃণমূলে যোগদান করলেন প্রায় দুই শতাধিক মহিলা ও পুরুষ

চাঁচল:- নির্বাচনের আগে বিধায়কের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে দল ত্যাগ করে তৃণমূলে যোগদান করলেন প্রায় দুই শতাধিক মহিলা ও পুরুষ। সোমবার দিন সকালে চাঁচোল ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে চাঁচল বিধানসভা তৃণমূল প্রার্থী নীহার রঞ্জন ঘোষের হাত ধরে তৃণমূলে যোগদান করেন দুই শতাধিক মহিলা ও পুরুষ। যদিও দলবদল এর বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ চাঁচোল বিধানসভার বিদায়ী বিধায়ক তথা সংযুক্ত মোর্চার কংগ্রেস প্রার্থী আসিফ মেহেবুব।

জানা গিয়েছে, চাঁচোল১ নং ব্লকের অলিহোন্ডা, মতিহার পুর, কলিগ্রাম ও খরবা অঞ্চল থেকে প্রায় দুই শতাধিক মহিলা পুরুষ তারা শাসক শিবিরে নাম লেখান। যোগদানকারীদের অভিযোগ, চাচোল বিধানসভার যিনি বিধায়ক ছিলেন গত পাঁচ বছরের তিনি কোন কাজ করেননি। তাকে এলাকার মানুষ পাশে পাইনি। পাঁচ বছরে তার একবারই সাক্ষাত পাওয়া যায় সেটা ভোটের আগে।

যোগদানকারীদের মধ্যে রেজাউল হক, আসিয়া  খাতুনরা বলেন বলেন, আধার কার্ডে বিধায়কের স্বাক্ষরের জন্য চাতক পাখির মতো চেয়ে থাকতে হয়। পার্টি অফিসে গিয়েও বিধায়কের দেখা মেলেনি। তাহলে কোন স্বার্থে আমরা কংগ্রেস করব। তাই এলাকার বিধায়কের ওপর ক্ষুব্দ হয়ে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করলাম। চাচোল বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী নীহার রঞ্জন ঘোষ বলেন, যোগদানকারীদের মুখ থেকে শোনা এলাকার যিনি বিধায়ক ছিলেন তিনি এলাকার উন্নয়নের কোন কাজই করেনি।

মানুষের পাশে থাকি নি। তাই বিধায়কের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে তারা কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করলেন। তাদেরকে তৃণমূলে স্বাগত জানাচ্ছি। ভোটের আগে তৃণমূলের আরো শক্তি বৃদ্ধি হল। যদিও যোগদানের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ চাচোল বিধানসভার বিধায়ক তথা সংযুক্ত মোর্চার কংগ্রেস প্রার্থী আসিফ মেহেবুব। তিনি বলেন, আমার কাছে কোন খবর নেই কারা যোগদান করলেন।