আলমারির মধ্যে থাকা জামাকাপড়ের যত্ন কিভাবে নেবেন জেনে নিন

আলমারির মধ্যে থাকা জামাকাপড়ের যত্ন কিভাবে নেবেন জেনে নিন

আজবাংলা      এমনিতেই চলছে ঘরবন্দি জীবন। তারমধ্যে চলছে বৃষ্টির দাপট। এরফলে ঘরময় জুড়ে উটকো গন্ধ, চার দেওয়ালের মাঝে স্যাঁতস্যাঁতেভাব ইত্যাদি। তবে এইসময় সবথেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয় আলমারির মধ্যে থাকা কাপড়চোপড়। জামা কাপড়ের পাশাপাশি যদি কোন চামড়ার জিনিস থাকে তাহলে চলে আসে ছত্রাক। আসুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে আলামারির মধ্যে থাকা জিনিসপত্রের যত্ন নেওয়া যেতে পারে।

প্রথমত সুট জাতীয় পোশাক আলমারির মধ্যে থাকা রডে হ্যাঙারে ঝুলিয়ে রাখলে খুব ভাল। শাড়ি কিংবা সালোয়ার ও কুর্তি হ্যাঙারে ঝোলান, তাতে অনেকটা জায়গা পাবেন। তবে সোয়েটার থেকে শুরু করে অন্যান্য শীতের পোশাক ভাঁজ করে রাখুন। ওগুলো ঝুলিয়ে রাখলে লম্বায় বেড়ে যাবে। দ্বিতীয়ত বর্ষার কারনে ছত্রাকের আনাগোনা শুরু হয়।

আলমারির মধ্যে বাসা বাঁধার পাশাপাশি এদের থেকে আসা আর একটি সমস্যা হল বিকট গন্ধ। তাই এই ভ্যাপসাভাব ও পোকামাকড়দের থেকে রক্ষা পেতে চাইলে জামা কাপড় ও আসবাবের মধ্যে কয়েকটা ন্যাপথালিন ছড়িয়ে দিন। আবার শুকনো নিমপাতাও দিতে পারেন। দারুন টোটকা হিসাবে কাজ করে।আলমারির মধ্যে যদি ভিজেভাব থাকে বা ছত্রাকের বাসা বাঁধলে সমস্ত জামাকাপড় এবং জিনিসপত্র নামিয়ে নিন।

এরপর শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। তারপর ভেজাভাব চলে গেলে আপনার পোশাক গুছিয়ে রাখুন। আপনার যদি মনে হয়, আসবাবের তাকে কাগজ বিছিয়ে তার উপর জামাকাপড় গুছিয়ে রাখবেন সেইটাও করতে পারেন। এরফলে আলমারির মধ্যে স্যাঁতস্যাঁতেভাবে পোশাক নষ্ট হয় না কিংবা রং মুছে আরেকটা কাপড়ে লাগার ভয় থাকে না।

শাড়ি যাতে ভাঁজে ভাঁজে ফাঁস না ধরে, কিংবা ছিড়ে না যায়, তাই মাঝেমধ্যেই আলমারি ওলট-পালট করে গোছান। এর পাশাপাশি লেদারের জুতো থেকে বেল্ট, ব্যাগ ব্যবহার করার পর আলমারিতে তুলে রাখার আগে ভাল করে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিয়ে বা হেয়ার ড্রায়ার স্প্রে করে তারপর রাখুন।