বিনা পারিশ্রমিকে ৩২ বছর ধরে ট্রাফিক সামলাচ্ছেন বৃদ্ধ

বিনা পারিশ্রমিকে ৩২ বছর ধরে ট্রাফিক সামলাচ্ছেন বৃদ্ধ

আজবাংলা   দিল্লির সিলমপুরের যদি কখনো যান আপনি, তাহলে দেখা মিলবে রাস্তার মাঝে এক বৃদ্ধের। তিনি প্রত্যেকদিন সকালে ৯টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত দাঁড়িয়ে নিয়ন্ত্রণ করে চলেছেন ট্রাফিক। কখনও চিৎকার করে কাউকে কিছু বলছেন, আবার কখনও হাত নেড়ে দাঁড় করাছেন কোন গাড়িকে। তিনি ঠায় দাঁড়িয়ে থাকেন কাঠফাটা রোদ হোক কি কনকনে ঠাণ্ডায় কিংবা বর্ষা বা শীতে। আশ্চর্যের বিষয়, তিনি এই কাজের জন্য কোনরকম পারিশ্রমিক নেন না। তাঁর এই কাজের পিছনে রয়েছে এক মর্মান্তিক ঘটনা।

বর্তমানে ওনার বয়স হয়েছে ৭২ বছর, নাম তাঁর গঙ্গারাম। দিল্লীর সিলমপুর এলাকার মাঝ রাস্তা পেরোতে গিয়ে গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিল ওনার একমাত্র ছেলে। ছেলের শোকে প্রান হারান তাঁর স্ত্রীও। এরপর পরিবারের মধ্যে আর কেউ অবশিষ্ট না থাকার জন্য, উনি এই ট্রাফিক সিগনালের কাজ শুরু করেন। গত ৩২ বছর ধরে এটাই তাঁর রোজনামচা।

এই ভয়াবহ করোনা তাঁর কাজের বাধা হতে উঠতে পারেননি। তিনি একসময়ে ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ছিলেন। সকলের বাড়ি গিয়ে টিভি থেকে ফ্রিজ, পাখা, লাইট ইত্যাদি সারিয়ে দিতেন। পরে তাঁর ছেলেও যোগ দিয়েছিল বাবার পেশায়। সব কিছু বেশ ঠিকঠাক চলছিল। কিন্তু দুঃখের বিষয়, আচমকা একদিন পুলিশ এসে খবর দিল তাঁর ছেলের মৃত্যুর।

সেই থেকে প্রতিদিন হাতে লাঠি নিয়ে ও একেবারে পুলিশের মতো করে ইউনিফর্ম বানিয়ে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করে চলেছেন গঙ্গারামবাবু। বর্তমানে ৭২ বছর বয়স হলেও তিনি দিব্যি কাজ করে চলেছেন। তাঁর এই কাজের সাহায্যের জন্য দিল্লী পুলিশ থেকে একটি মোবাইল ফোন উপহার হিসাবে দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে বহু সংস্থা গঙ্গারামবাবুকে সংবর্ধনা জানিয়েছে। খবরের শিরোনামে আসতেই দেশজুড়ে প্রত্যেকেই তাঁর এই কাজের প্রশংসা করেছেন।