গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে নিজেকে শেষ করে নিলেন এক বৃদ্ধা

old woman ended herself
বৃদ্ধা
old woman ended herself
বৃদ্ধা

আজবাংলা মালদা : গঙ্গাগর্ভে আগেই সর্বস্য হারিয়ে ছিলেন।হাতে গড়া ঘর,ভোটেমাটি সব রাক্ষুসে গঙ্গায় তলিয়ে যাওয়ার পর আশ্রয় হয়েছিলো বিদ্যালয় ভবনে।আশা ছিলো পাওয়া যাবে পুনর্বাসন।তবে দীর্ঘ প্রায় দুই বছর করুন জীবন কাটলেও পাওয়া যায়নি কোনো পুনর্বাসন। পুনর্বাসন না পেয়ে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন ভিটেমাটি হারা বৃদ্ধা। অবশেষে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে নিজেকে শেষ করে নিলেন এক বৃদ্ধা।মালদার বৈষ্ণবনগর থানার বিননগর-‌১ গ্রামপঞ্চায়েতের সরকারটোলা গ্রামের ঘটনা। পুলিস জানিয়েছে,মৃত প্রৌঢ়ার নাম ফুরকনি মন্ডল(‌৭২)‌। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে,সরকারটোলা গ্রামেই ৫ কাঠা নিজ জমির ওপর ছিল তাঁর বাড়ি।চারটি ঘর ছিল সেখানে বৃদ্ধার।গোটা এলাকা জুড়ে চলছিল নদী গ্রাস। ২০১৬ সালের ২৯ জুলাই সেই ভয়ঙ্কর দিন। নিমিষে গঙ্গার গর্ভে তলিয়ে যায় আস্ত সরকারটোলা গ্রামটি।প্রায় ২৫০ পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়ে। নিজেকে প্রাণে বাঁচানো ছাড়া আর কিছুই রক্ষা হয়নি গ্রামবাসীর।স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে তারপরই বন্যায় সর্বহারা অসহায় বন্যার্তদের ঠাঁয় হয়েছে স্থানীয় বিননগর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে। বছরের পর বছর পার একই গঙ্গার রূপ দেখেছে এলাকার মানুষ।তলিয়ে আরো বহু গ্রাম।পুনর্বাসনের আশ্বাসটুকু ছাড়া আর ফিরেও তাকাইনি কেন্দ্র কেউই বলে জানান গ্রামবাসীরা।এমনকি উদাসীন ফরাক্কা ব্যারেজ কর্তৃপক্ষ।তাই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন এক বৃদ্ধা।শেষে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন বন্যাপীড়িত প্রৌঢ়া।অস্থায়ী ভাবে আশ্রয় নেওয়া বিননগর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের তিন তলার ছাদে বুধবার সকালে দেখা যায় তাঁর অগ্নিদগ্ধ মৃতদেহ। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, প্রৌঢ়ার  একমাত্র ছেলে শঙ্কর মন্ডল। তিনি ভিন রাজ্যে মজুরের কাজ করেন। সপ্তাহ খানেক আগে বাড়ি ফিরে আসেন।ঘটনা প্রসঙ্গে মৃতার ছেলে জানিয়েছরন,” ইটের তৈরি বাড়ি ছিল তাদের।আম, জাম, পেয়ারা-‌কী গাছ ছিল না তাদের বাড়ির মধ্যে।মা নিজের হাতে তিল তিল করে গড়েছিলেন।সেগুলো এখনও আমাদের কাছে দু্ঃস্বপ্ন। সর্বস্ব খুঁইয়ে আমরা আশ্রয় স্কুল ভবনে।তখন থেকেই অবসাদে ভুগছিলেন মা। এদিন সকালে উঠে আর মাকে দেখতে পাওয়া যায়না।খোঁজাখুঁজি শুরু করি।ছাদে গিয়ে দেখি মা’‌র অগ্নিদগ্ধ দেহ”। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় বৈষ্ণবনগর থানার পুলিশ। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তর জন্য মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।সাথে তদন্ত শুরু করেছে বৈষ্ণবনগর থানার পুলিশ।