আরও একধাপ এগিয়ে মঙ্গলবারই চাঁদের কক্ষপথে পৌঁছে গেল চন্দ্রযান ২

চন্দ্রযান ২
চন্দ্রযান ২

আজবাংলা ২২ জুলাই শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান মহাকাশ কেন্দ্র থেকে চাঁদের পথে পাড়ি দেয় ভারতের চন্দ্রযান-২। উত্ক্ষেপণের পর থেকে এখনও পর্যন্ত চন্দ্রযান-২ তে কোনও যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা যায়নি। পরিকল্পনামাফিক চাঁদের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে চন্দ্রযান-২, জানান ইসরোর চেয়ারম্যান ডঃ কে শিভান।মঙ্গলবারই চাঁদের কক্ষপথে পৌঁছে গেল চন্দ্রযান। ১৪ তারিখ পৃথিবীর কক্ষপথ ছেড়ে চাঁদের কক্ষপথের দিকে যাত্রা শুরু করে চন্দ্রযান-২। ট্রান্স-লুনার বার্নের মাধ্যমে কক্ষপথ বদল শুরু হয়। পৃথিবীকে প্রদক্ষিণের পর্ব শেষে চাঁদের উদ্দেশে আরও বেশ কিছুটা এগিয়ে যায় চন্দ্রযান-২। প্রায় ৬ দিনব্যাপী ‘ট্রান্স-লুনার ইনসার্শন’ সেরে চাঁদের কক্ষপথের কাছাকাছি পৌঁছে যায় চন্দ্রযান-২। ৭ সেপ্টেম্বর চাঁদের মাটিতে নামবে চন্দ্রযান-২ কিন্তু চাঁদের কক্ষপথে প্রবেশ করা ছিল খুবই চ্যালেঞ্জিং! ইসরো সূত্রে জানানো হয়, গোটা প্রক্রিয়াটির সাফল্য নির্ভর করছে চন্দ্রযান-২ এর গতির ওপরে। যে গতি নিয়ে এটির চাঁদের কক্ষপথে ঢোকার কথা তার থেকে বেশি গতি থাকলে এটি চাঁদের কক্ষপথ থেকে ছিটকে মহাশূন্যে হারিয়ে যাবে। আর নির্দিষ্ট গতির থেকে কম গতিতে চন্দ্রযান-২ কক্ষপথে ঢুকলে চাঁদের অভিকর্ষ বলের টানে এটি আছড়ে পড়তে পারে চাঁদের মাটিতে। চাঁদের দিকে চন্দ্রযান-২ যত এগিয়েছে ততই কমেছে পৃথিবীর অভিকর্ষ টান। আর বেড়েছে চাঁদের অভিকর্ষ বল। অত্যন্ত ধীরে ও চাঁদের অভিকর্ষ বলের সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে তার কক্ষপথে ঢুকে পড়ে চন্দ্রযান-২। চাঁদের কক্ষপথে প্রবেশ করে চন্দ্রযান-২ সেখানে পাক খাবে পনের দিন। উল্লেখ্য ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থার এই মিশন সাফল্য পেলে, বিশ্বের দরবারে চার নম্বর স্থানে চলে আসবে ভারত। আমেরিকা, রাশিয়া,চীন এর পরই ভারতের স্থান হবে ভারতের।