প্যারিসসহ ফ্রান্সের বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভে নামলেন মানুষ। আটক ২৪৪

People in France, including Paris, called for protests. Detained 244
প্যারিসসহ ফ্রান্সের বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভে

আজবাংলা   জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর কারণে গত ১৭ নভেম্বর থেকে ব্যাপক গণ-আন্দোলনের মুখে পড়েছে ফ্রান্সের এমানুয়েল মাখোঁর সরকার। ‘ইয়েলো ভেস্ট’ আন্দোলনের চাপে পড়ে গত ১০ ডিসেম্বর জ্বালানি তেলের কর বৃদ্ধি বাতিল এবং অবসর ভাতা ও ওভারটাইমের আয়ের ওপর থেকে কর প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট। গতকাল বিক্ষোভকারীদের থামাতে রাজধানীতে জলকামান ব্যবহার করে পুলিশ। বিক্ষোভকারীদের ওপর কাঁদানে গ্যাসের শেলও ছোড়া হয়। সারা দেশে প্রায় ৮৪ হাজার মানুষ গতকাল রাস্তায় নামেন। শুধু প্যারিসের রাস্তায় নামেন ৮ হাজার মানুষ। দেশজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর প্রায় ৮০ হাজার সদস্যকে।  ফ্রান্সের মোটরযান আইন অনুযায়ী, বেশি আলো প্রতিফলিত করে এমন এক ধরনের বিশেষ নিরাপত্তামূলক জ্যাকেট গাড়ির চালকদের গাড়িতে রাখতে হয়। এর রং সবুজাভ হলুদ (ইয়েলো)। গত নভেম্বরে আন্দোলনকারীরা এই জ্যাকেট (ভেস্ট) পরে বিক্ষোভের সূচনা করেছিল বলে আন্দোলনটি পরিচিতি পায় ‘ইয়েলো ভেস্ট’ আন্দোলন নামে। শনিবার রাজধানী প্যারিসসহ বিভিন্ন শহরে হাজারো ইয়েলো ভেস্ট আন্দোলনকারী রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেন। এ নিয়ে টানা ৯ সরকারি ছুটিতে বিক্ষোভে নামলেন মানুষ। গতকাল অন্তত ২৪৪ জন ইয়েলো ভেস্ট আন্দোলনকারীকে আটক করেছে পুলিশ। শুধু রাজধানী প্যারিসেই আটক করা হয়েছে ১৫৬ জনকে। ফ্রান্সে জ্বালানি তেলের দাম গত ১২ মাসে ২৩ শতাংশ বেড়েছে। মাখোঁ সরকার এ বছর হাইড্রোকার্বন কর বাড়িয়েছে। প্রতি লিটার ডিজেলে ৭ দশমিক ৬ সেন্ট এবং পেট্রলে ৩ দশমিক ৯ সেন্ট করে দাম বাড়িয়েছে। ফ্রান্স জুড়ে সর্বশেষ “হলুদ ন্যস্ত” সমাবেশে বিক্ষোভকারীদের সংখ্যা শনিবার বেড়েছে, তবে প্যারিস ও অন্যান্য শহরে পুলিশের শত শত গ্রেপ্তার এবং সংঘর্ষের সত্ত্বেও সহিংসতা হ্রাস পেয়েছে। নভেম্বরে প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনের বিরুদ্ধে নবম রাউন্ডে ৮৪,০০০ এরও বেশি লোক বিক্ষোভের মুখোমুখি হয়েছেন, অভ্যন্তরীণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত শনিবার ৫০,০০০ থেকেও বেশি।